নাক দেখে চিনুন মানুষ

Updated By: Dec 6, 2015, 03:58 PM IST
নাক দেখে চিনুন মানুষ

নাক দেখে চিনুন মানুষ
কথায় বলে গোঁফের আমি গোঁফের তুমি গোঁফ দিয়ে যায় চেনা। কিন্তু আজ যা নিয়ে বলা হবে তা হল নাকের আমি নাকের তুমি নাক দিয়ে যায় চেনা। কোনও মানুষ আপনার সামনে দাঁড়াল, আপনি তাকে দেখে একটা ধারণা করার চেষ্টা করছেন, নিন তার নাকের দিকে একটু তাকান। সোজা, চওড়া, ব্যাঁকা। কোনও ধরনের নাক মানুষটার! নিন একটা নাক দিয়ে মানুষ চেনার একটা ধারনা দিলাম। এটা অবশ্যই সবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। এটা শুধুই একটা পরিসংখ্যান থেকে নিয়ে সহজ সরল ব্যাখা--

সোজা নাক

ভাল দিক--১) মানুষকে সব কাজে উত্সাহ জোগায়। ২) খুব গোছানো স্বভাবের হয়। ৩) যে কোনও কাজ দিলে উদ্ধার করে ফেলে। ৪) মাথা অসম্ভব ঠান্ডা।

খারাপ দিক-- ১) প্রেমে প্রতারণা করার সম্ভাবনা থাকে। ২) প্রত্যাশা অনুযায়ী ফল পায় না। ৩) কাজ না করতে পারলে অন্যকে দোষ দেওয়ার প্রবণতা থাকে।

বাঁকা নাক

ভাল দিক- ১) বিদ্রোহী স্বভাবের মানুষ হয়, ২) যে কোনও কথায় ব্যতিক্রমী দিক তুলে ধরে, ৩) সব কথায় হ্যাঁ তে হ্যাঁ না মিলিয়ে যুক্তি দিয়ে বোঝার চেষ্টা করে।
 খারাপ দিক-১) সাধারণ মানুষ যেসব বিষয়কে ভাল প্রেমিক হওয়ার গুণ বলে থাকে সেগুলি সাধারণত এদের থাকে না। ২) কথায় কথায় তর্ক করে।

 

চওড়া নাক

ভাল দিক- ১) জন্মগত নেতা। নেতৃত্ব দিয়ে যে কাজকে সফলভাবে করে থাকে। ২) অসাধারণ ব্যক্তিত্ব, ৩) সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্মগত ক্ষমতা থাকে।

খারাপ দিক- ১) স্বজনপোষণ করে থাকে, ২) নেতৃত্ব দিতে না পারলে চাপা ক্ষোভ থেকে সেরাটা দিতে পারে না।

মাংসল নাক

এই ধরনের নাকের গোড়টা সরু হলের পুরো নাকের দৈর্ঘ্য বেশ বড় হয়।

ভাল দিক- ১)  দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারে, ২) যে কোনও কাজ দ্রুত শেষ করতে পারে, ৩) মন থেকে কাজ করে

খারাপ দিক-১) কাজে প্রচুর ভুল হয়, ২) একরোখা, মাথাগরম প্রকৃতির হয়, ৩) মানুষকে ভুল বোঝে

চ্যাপ্টা নাক

ভাল দিক- ১) মনের দিক থেকে একেবারে মাটির মানুষ। তবে বাইরে থেকে সবসময় বোঝা যায় না। খুব দয়ালু প্রকৃতির হয়ে থাকে। ২) ভালবাসা দিতে ও নিতে জানে। ৩) উদ্যমী স্বভাবের হয়ে থাকে, ৪) প্রচুর ঝুঁকি নেয়, ৫) আশাবাদী স্বভাবের মানুষ হয়।

খারাপ দিক- ১) চরিত্র নিয়ে মাঝামাঝে প্রশ্ন ওঠে। জীবনে একাধিক প্রেম থাকতে পারে। ২) কোনও কাজের মাঝপথে গিয়ে খেই হারিয়ে ফেলে।