CISF জওয়ানদের জন্য ফতোয়া! সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরকারের সমালোচনা বন্ধ

দেশের বিভিন্ন জায়গায় কর্মরত দেড় লাখের বেশি সংখ্যক CISF জওয়ানদের জন্য এই নির্দেশিকা জারি হয়েছে। 

Updated By: Aug 2, 2020, 12:51 AM IST
CISF জওয়ানদের জন্য ফতোয়া! সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরকারের সমালোচনা বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদন- ভারতীয় সেনার সঙ্গে যুক্ত কেউ ফেসবুক-সহ আরও বেশ কয়েকটি অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন না। দিনকয়েক আগেই এমন নির্দেশিকা জারি করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। একজন সেনা কর্তা সরকারের এই নির্দেশিকার বিরুদ্ধে সওয়াল করে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। তিনি জানিয়েছিলেন, ফেসবুক-এর মাধ্যমে তিনি আমেরিকায় বসবাসকারী আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করেন। কিন্তু আদালত তাঁর দাবি মানেনি। স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, চাকরি করতে হলে সরকারের নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে। এবার CISF জওয়ানদের জন্যও নির্দেশিকা জারি করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

আধাসেনা বাহিনীকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সরকারের কোনোরকম সমালোচনা করা যাবে না। দেশের বিভিন্ন জায়গায় কর্মরত দেড় লাখের বেশি সংখ্যক CISF জওয়ানদের জন্য এই নির্দেশিকা জারি হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে CISF জওয়ানদের সোশ্যাল মিডিয়া গাইডলাইন প্রকাশ করা হয়েছে। দুপৃষ্ঠার সেই গাইডলাইনে বলা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সরকারের সমালোচনা তাঁরা করতে পারবেন না। কেউ এই নির্দেশিকা না মানলে তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের এমন নির্দেশিকা জারির পর থেকে সৃষ্টি হয়েছে বিতর্কের। এর আগে ভারতীয় সেনা জওয়ানদের ফেসবুকসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্ম বন্ধের নির্দেশিকা জারি করে সরকার জানিয়েছিল, জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থেই এমন করা হয়েছে। এবারও কারণ সেই একই। এছাড়া বাহিনীর মধ্যে শৃঙ্খলাপরায়ণ মনোভাব বজায় রাখার কথাও বলা হয়েছে।

CISF-এর সর্বস্তরের জওয়ানদেরই এই নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে। দেশের ৬৩টি বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন CISF-এর জওয়ানরা। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবন ও সংবেদনশীল স্থান ও জাতীয় সম্পত্তির নিরাপত্তার দায়ভারও সামলান তাঁরা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় CISF-এর জওয়ানরা দেশ ও বাহিনীর স্পর্শকাতর বিষয়ে পোস্ট করে ফেলছেন। এছাড়া প্রকাশ্যেই সরকারের বি্ভিন্ন নীতি নিয়ে সমালোচনাও করছেন। এবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক তাঁদের জন্য পাঁচ দফা গাইডলাইন প্রকাশ করেছে। তাতে বলা হয়েছে, ট্যুইটার, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব-সহ সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের ডিটেলস তাঁদের জমা দিতে হবে। কোনও ক্ষেত্রে আইডি পরিবর্তন করা হলে বা নতুন সোশ্যাল মিডিয়া আইডি কেউ খুললে সেই তথ্য কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিতে হবে। বেনামে কোনো অ্যাকাউন্ট খুলে ধরা পড়লে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সরকারের কোনও সমালোচনা করা যাবে না।