মোদীর সঙ্গে সাক্ষাত করেই ‘নরম সুর’ কেজরীবালের গলায়!

এ দিন প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃষির জন্য যমুনা জল পাওয়ার আর্জি জানান কেজরীবাল। পাশাপাশি, দিল্লি সরকারের জনপ্রিয় প্রকল্প ‘মহল্লা ক্লিনিক’-এর পরিদর্শনের জন্য মোদীকে আমন্ত্রণও জানান তি

Updated By: Jun 21, 2019, 04:22 PM IST
মোদীর সঙ্গে সাক্ষাত করেই ‘নরম সুর’ কেজরীবালের গলায়!
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাত্ করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল। সাক্ষাত্ শেষে অরবিন্দের মুখে শোনা গেল ‘মোদীর জয়-ধ্বনি’। কার্যত অপ্রত্যাশিত সুরেই আপ সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরীবাল কেন্দ্রের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার কথা বললেন। লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির নিরঙ্কুশ জয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদও জানান অরবিন্দ কেজরীবাল।

এ দিন প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃষির জন্য যমুনা জল পাওয়ার আর্জি জানান কেজরীবাল। পাশাপাশি, দিল্লি সরকারের জনপ্রিয় প্রকল্প ‘মহল্লা ক্লিনিক’-এর পরিদর্শনের জন্য মোদীকে আমন্ত্রণও জানান তিনি। আম আদমি পার্টির সরকারের স্বাস্থ্য প্রকল্পের এই পরিষেবা বেশ জনপ্রিয় দিল্লিতে। আয়ুষ্মান ভারত নিয়ে আলোচনা হয় তাঁদের মধ্যে। অরবিন্দ কেজরীবাল জানান তাঁর সরকারে মজবুত স্বাস্থ্যবিমা রয়েছে। ‘আয়ুষ্মান ভারত’-কে ওই বিমার সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়ার আর্জিও জানান কেজরীবাল।

আরও পড়ুন- সংসদে ভাটপাড়ার পরিস্থিতি তুলে ধরলেন দিলীপ, প্রতিনিধি পাঠানোর আর্জি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে

লোকসভা নির্বাচনের পর এই প্রথম সাক্ষাত্ মোদী-কেজরীবালের। তবে, মোদীর বিরুদ্ধে কেজরীবালের এমন ‘নরম সুরে’ নয়া রাজনৈতিক তত্ত্ব খুঁজে পাচ্ছেন পর্যবেক্ষকরা। কয়েক দিন আগেই দিল্লি সরকার মহিলাদের জন্য মেট্রোয়  বিনা ভাড়া করে দেওয়ার ঘোষণা করে। কিন্তু দিল্লি মেট্রো রাজ্য ও কেন্দ্রের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হয়। এই সিদ্ধান্ত নিতে গেলে কেন্দ্রের অনুমোদন প্রয়োজন। অন্য দিকে দিল্লি মেট্রোর প্রাক্তন প্রধান ‘মেট্রো ম্যান’ শ্রীধরন প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে জানান, দিল্লি সরকারের এই সিদ্ধান্ত মেট্রোকে দেউলিয়া করে দেবে।

আগামী বছরই দিল্লিতে বিধানসভা নির্বাচন। মনে করা হচ্ছে, দিল্লি মেট্রোয় মহিলাদের জন্য বিনা ভাড়ার প্রকল্প রাজনৈতিকভাবে ফায়দা দিতে পারে আপ-কে। ওয়াকিবহালের মতে, কেন্দ্রের অনুমোদন পেতেই নরম মনোভাব দেখাতে বাধ্য হচ্ছেন অরবিন্দ কেজরীবাল। সম্প্রতি লোকসভা নির্বাচনে দিল্লিতে ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে যায় আপ। সাতটিতে ৭টি পায় বিজেপি।