আগামিকাল ৪০ বছরে পা দলের, মোমবাতি জ্বালানোর বার্তা কমল শিবিরের কৌশল! কমলের টুইটে জোর জল্পনা

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন, "রবিবার রাতে ৯ মিনিট আলো জ্বালিয়ে আমাদের প্রমাণ করতে হবে আমরা কেউ হেরে যাইনি। আমরা প্রত্যেকে বাড়িতে থেকেও আমরা কারোর থেকে বিচ্ছিন্ন নই।"

Updated By: Apr 5, 2020, 06:51 PM IST
আগামিকাল ৪০ বছরে পা দলের, মোমবাতি জ্বালানোর বার্তা কমল শিবিরের কৌশল! কমলের টুইটে জোর জল্পনা
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: দেশ জুড়ে জারি রয়েছে ২১ দিনের লকডাউন।  লডকডাউনে দেশবাসীর মনোবল বৃদ্ধি  করতে নতুন ‘পদ্ধতি’ নিয়ে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভিডিয়ো বার্তার মাধ্যমে দেশবাসীর কাছ থেকে ৫ এপ্রিল রাত ৯ টায় ৯ মিনিট চেয়েছেন নমো। রবিবার রাত ৯টায় ঘরের সমস্ত আলো নিভিয়ে নিজের বাড়ির বারান্দায় এসে প্রদীপ, মোমবাতি বা টর্চের আলো জ্বালানোর আর্জি জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু কেন এই দাওয়াই?

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন, "রবিবার রাতে ৯ মিনিট আলো জ্বালিয়ে আমাদের প্রমাণ করতে হবে আমরা কেউ হেরে যাইনি। আমরা প্রত্যেকে বাড়িতে থেকেও আমরা কারোর থেকে বিচ্ছিন্ন নই।" প্রধানমন্ত্রী এ-ও বলেন, "লকডাউনের ফলে দেশে সবথেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন গরিব মানুষেরা। প্রচুর পরিযায়ী শ্রমিক কাজ হারিয়েছেন। অনেকেই আটকে রয়েছেন ভিন রাজ্যে, ফিরতে পারেননি বাড়ি। তাঁদের সকলের মনোবল বৃদ্ধিতে এদিন সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।"

আরও পড়ুন- করোনায় আক্রান্ত খোদ পুরপ্রতিনিধি, মধ্যমগ্রামে জোরাল করোনা-আতঙ্ক

কিন্তু নমোর এ হেন পদক্ষেপের পর শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। তোপ দাগতে ভোলেনি বিরোধী শিবির। তবে মোমবাতি জ্বালাতে বলার পিছনে আরও একটি সম্ভাব্য কারণ থাকতে পারে বলে চাঞ্চল্যকর টুইট করেছেন অভিনেতা কমল রশিদ খান। তিনি টুইট করে জানিয়েছেন, বিজেপির প্রতিষ্ঠা হয়েছিল ১৯৮০ সালের ৬ এপ্রিল, হিসেব মতো ২০২০ সালের ৫ এপ্রিল ৪০ বছর সম্পূর্ণ হচ্ছে বিজেপি দলের। মোমবাতি জ্বালিয়ে ৪০ তম বছর উদযাপনের ফন্দি করেনি তো কমল শিবির! এমনই জল্পনা উসকে দিয়েছেন অভিনেতা কমল।

টুইট করে প্রধানমন্ত্রীর এই আহ্বানের বিরোধে আগেই মন্তব্য করেছিলেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী, শশী থারুর ও তৃণমূলের মহুয়া মৈত্র। কিন্তু কমল খানের এই টুইটে  ৪০ বছর আগে কমল প্রস্ফুটনের  যে তত্ত্ব তিনি দিয়েছেন তা রীতিমত শোরগোল ফেলে দিয়েছে চারদিকে।

অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগন মোহন রেড্ডী অবশ্য নমোর এই আহ্বানের সমর্থনেই কথা বলেছেন। টুইট করে প্রধানমন্ত্রীর এই আহ্বানে সমর্থন জুগিয়েছেন অভিনেত্রী রবিনা টন্ডন, পরিচালক শেখর কাপুর ছাড়াও আরও অনেকে।