গবেষণাগারে তৈরি হিরে আসল বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রি করতো মেহুল চোকসির কোম্পানি

পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক দুর্নীতিতে অভিযুক্ত মেহুল চোকসির বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল। এক মার্কিন সংস্থার মতে মেহুল চোকসি সম্ভবত ল্যাবরেটরিতে তৈরি কৃত্রিম হিরে বিক্রি করতো।

Updated By: Mar 9, 2019, 11:58 AM IST
গবেষণাগারে তৈরি হিরে আসল বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রি করতো মেহুল চোকসির কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদন: পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক দুর্নীতিতে অভিযুক্ত মেহুল চোকসির বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল। এক মার্কিন সংস্থার মতে মেহুল চোকসি সম্ভবত ল্যাবরেটরিতে তৈরি কৃত্রিম হিরে বিক্রি করতো।

আরও পড়ুন-বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন? মুকুলের সঙ্গে সাক্ষাতের পর কী প্রতিক্রিয়া সব্যসাচীর?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্যামুয়েলস জুয়েলার্স নামে একটি দোকান চালান নীরব মোদীর মামা মেহুল চোকসি। সেখানে থেকে বিক্রি করা হয় ডিজাইনার হিরের গহনা। পঞ্জাব ব্যাঙ্ক কেলেঙ্কারিতে নাম জড়িয়ে দেশ ছাড়ার পর মেহুল চোকসির বিরুদ্ধে তদন্তের আদেশ দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত।

তদন্তে উঠে এসেছে ব্রিটিশ ভার্জিন আইল্যান্ডের একটি ল্যাবরেটরিতে গোপনে কৃত্রিম হিরে তৈরি করতো মেহুল চোকসির ফার্ম স্যামুয়েলস জুয়েলার্স। তারপর সেইসব কৃত্রিম হিরেকে প্রাকৃতিক হিরে হিসেবে চালিয়ে দেওয়া হতো।

মার্কিন তদন্তকারীদের তদন্তে উঠে এসেছে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য। দেখা যাচ্ছে মেহুল চোকসির হিরেকে প্রাকৃতিক বা আসল বলে সার্টিফিকেট দেয় ইনডিপেন্ডেন্ট জেমলজিক্যাল ল্যাবরেটরি(আউজিএল)। তার পরেই সেই হিরে বাজারে বিক্রি করে স্যামুয়েলস জুয়েলার্স। কিন্তু এই আইজিএল-এর মালিক মেহুল চোকসির বোন ও কয়েকজন পরিচিত। ফলে হিসের মান নিয়েই এখন প্রশ্ন উঠছে।

আরও পড়ুন-‘দেশের ১৩০ কোটি মানুষই আমার প্রমাণ, পাকিস্তানকে তোল্লাই দেওয়া বন্ধ করুন’

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের দুর্নীতি প্রকাশ্যে আসার পর নিউ ইয়র্কের এক হোটেলে নীরব মোদীর সঙ্গে দেখা করেন মেহুল চোকসি। সেখানে স্যমুয়েলস জুয়েলার্স নিয়ে তাদের মধ্যে কথা হয়। কারণ স্যামুয়েলস জুয়েলার্সের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল গীতাঞ্জলী জুয়েলার্সের। এই দুই সংস্থার মধ্যে বিপুল টাকা লেনদেনের অভিযোগ ছিল। এক্ষেত্রে তা কীভাবে সামাল দেওয়া যায় তার পরিকল্পনার জন্যই ওই বৈঠক হয় বলে মনে করছেন গোয়েন্দারা।