বাদল অধিবেশন: করোনা সুরক্ষায় সাংসদদের দেওয়া হল বিশেষ কিট, প্রথা ভেঙে আসনে বসেই আলোচনা

মোট ৮ ধরনের জিনিস থাকছে সাংসদদের জন্য তৈরি ওই বিশেষ কিটে। 

Updated By: Sep 14, 2020, 12:38 PM IST
বাদল অধিবেশন: করোনা সুরক্ষায় সাংসদদের দেওয়া হল বিশেষ কিট, প্রথা ভেঙে আসনে বসেই আলোচনা
ফাইল ফোটো

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনা আবহের মধ্যেই বসতে চলেছে সংসদের বাদল অধিবেশন। এই পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ মোকাবিলায় সমস্ত সাংসদদের  মাল্টি-ইউটিলিটি কোভিড-১৯ কিট দেওয়া হচ্ছে। ডিআরডিও অর্থাৎ ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন-এর তরফে এই কিট তৈরি করা হয়েছে। 

করোনা বিধি মাথায় রেখে অধিবেশনের কার্যপ্রণালীতে কিছু অদবদল আনা হয়েছে। নির্দিষ্ট দূরত্ব বিধি মেনে দুই কক্ষে সাংসদেরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে বসেছেন। সামনে স্বচ্ছ প্রাচীর দিয়ে ঘেরা। যাতে বিতর্কের সময় ড্রপলেট ছড়িয়ে না পড়ে। প্রথা ভেঙে বসেই সাংসদরা আলোচনায় অংশগ্রহণ করছেন। অভ্যেসবশত কোনও সাংসদ উঠে দাঁড়ালে, সঙ্গে সঙ্গে অধ্যক্ষ ওম বিড়লার কড়া নির্দেশ, বসে কথা বলুন। 

জানা গিয়েছে, সাংসদদের দেওয়ার জন্য তৈরি এই মাল্টি-ইউটিলিটি কোভিড-১৯ কিটের প্রত্যেকটিতে রয়েছে ৪০টি করে ডিসপোজেবল মাস্ক, ৫টি করে এন-৯৫ মাস্ক, ২০ বোতল স্যানিটাইজার। যার প্রত্যেকটিতে থাকবে  ৫০ মিলিলিটার করে স্যানিটাইজার। এছাড়াও কিটে থাকছে ফেস শিল্ডস, ৪০ জোড়া গ্লাভস, দরজা খোলা ও বন্ধের জন্য একটা টাচ-ফ্রি হুক। যার ফলে হাত দিয়ে দরজা স্পর্শ করার প্রয়োজন পড়বে না সাংসদদের। দরজা না ধরে ওই হুক দিয়েই খোলা ও বন্ধ করা যাবে। আরও থাকছে মুখ মোছার জন্য হার্বাল স্যানিটাইজেশন ওয়াইপস ও শরীরে ইমিউনিটি বাড়াতে টি-ব্যাগ।

প্রসঙ্গত, করোনার জন্য লকডাউনের জেরে স্থগিত হয়ে গিয়েছিল বাজেট অধিবেশন। ৬ মাসের উপর বন্ধ সংসদ। নিয়ম অনুযায়ী, ৬ মাসের বেশি সংসদ বন্ধ রাখা যায় না। এই পরিস্থিতিতে অবশেষে আজ থেকে বসতে চলেছে বাদল অধিবেশন। নির্ধারিত সময়ের দু'মাস পর বসতে চলেছে বাদল অধিবেশন। আগামী ১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে বাদল অধিবেশন। তবে এবার বাদল অধিবেশনে বাদ প্রশ্নোত্তর পর্ব। কাটছাঁট করা হয়েছে জিরো আওয়ারও। যা নিয়ে বিরোধীদের মধ্যে ক্ষোভ সঞ্চার হয়েছে।

করোনা আবহে সাংসদদের সুরক্ষা স্বার্থে দুই কক্ষের অধিবেশনের সময় ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। লোকসভার প্রথম দিন সকাল ৯টা থেকে ১টা পর্যন্ত এবং বাকি দিনগুলি বিকেল ৩টে থেকে ৭টা পর্যন্ত চলবে। অন্য দিকে রাজ্যসভা চলবে প্রথম দিন বিকেল ৩টে থেকে ৭টা পর্যন্ত বাকি দিনগুলি সকাল ৯টা থেকে ১ পর্যন্ত।  জানা যাচ্ছে, সাংসদরা সামাজিক দূরত্ব মেনে দুই কক্ষেই বসতে পারবেন। দুই কক্ষেই বসানো হয়েছে জায়ান্ট স্ক্রিন।

আরও পড়ুন, সেনার পাশে দাঁড়িয়ে গোটা দেশ, সংসদ থেকে যেন এই বার্তাই পৌঁছয়, আর্জি প্রধানমন্ত্রীর