close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

ছবি: বিদেশি নাগরিকদের জন্য অসমে তৈরি হচ্ছে ভারতের প্রথম ডিটেনশন ক্যাম্প, কী থাকছে?

Sep 15, 2019, 23:18 PM IST
1/11

নিজস্ব প্রতিবেদন: হয় শিকড়ের প্রমাণ দাও। নাহলে ঠাঁই ডিটেনশন ক্যাম্প। অসমের গোয়ালপাড়ায় প্রায় প্রস্তুত হয়ে গিয়েছে শরণার্থী শিবির। তবে শরণার্থী শিবির বললে ভুলই হবে। এ যেন এক জেলখানা। 

2/11

পাঁচিলটা এতটাই উঁচু যে বাইরে চোখ যাওয়ার কোনও সুযোগই নেই। ফেলা আসা দিনগুলি একেবারে অতীত হয়ে যাওয়ার জন্য যথেষ্ট। নাগরিক পঞ্জিকরণ চূড়ান্ত হলে  অন্য জগতের বাসিন্দা হবেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। 

3/11

গুয়াহাটি থেকে ১৫০ কিলোমিটার দূরে মাটিয়া এলাকায় তৈরি হচ্ছে এই শরণার্থী শিবির। জেলখানা বললেও ভুল হবে না। প্রথম পাঁচিলের উচ্চতা কুড়ি ফুট। আর তারপরও ছয় ফুটের ঘেরাটোপ। 

4/11

ভিতরটাই বেশ পরিকল্পনা করেই আধুনিক বন্দোবস্ত। ১৫টি চারতলা বাড়ি তৈরি হচ্ছে, এর মধ্যে ২টি মহিলাদের জন্য। থাকবেন ৩ হাজার মানুষ।  

5/11

একটি ঘরে ৪-৫ জন অনুপ্রবেশকারী থাকবেন। শিশুদের সঙ্গে নিয়ে যে মহিলারা থাকবেন, তাঁদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা।

6/11

পাঁচিল দিয়ে ঘেরা থাকবে ২.৫ হেক্টর জমি এলাকা। বাইরের পাঁচিল ২০ ফুট উঁচু, ভিতরের পাঁচিল ৬ ফুট উঁচু। থাকবে ওয়াচটাওয়ার।

7/11

আটকশিবিরে থাকবে একটি হাসপাতাল, একটি অডিটোরিয়াম এবং একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এছাড়াও থাকবে ১৮০টি শৌচাগার এবং ১টি সর্বসাধারণের রান্নাঘর।

8/11

গত বছর থেকেই এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। সরকারের আশা, ডিসেম্বরের মধ্যে এই বাড়িগুলির নির্মাণকাজ শেষ করে ফেলা যাবে। 

9/11

প্রায় ৪৬ কোটি টাকা খরচ হবে ওই শিবির প্রস্তুত করতে।  অসম পুলিশ হাউজিং কর্পোরেশন লিমিটেড এটি তৈরির দায়িত্ব পেয়েছে।  

10/11

৩১ অগস্ট অসমে এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। নাগরিক পঞ্জিতে যাঁদের নাম নেই তাঁরা এখন হন্যে হচ্ছেন। নাগরিকত্ব প্রমাণে অনেকেই ছুটছেন এদিক ওদিক।   

11/11

হাতে আর মাত্র ১২০ দিন। এরপর শিকড়ের প্রমাণ দিতে না পারলে ঠাঁই হবে এই ডিটেনশন ক্যাম্প। এক অন্য পৃথিবীর বাসিন্দা হতে হবে তাঁদের। বিচ্ছিন্ন হতে হবে পরিচিত পরিবেশ থেকে।