close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

একেই বলে ক্রিকেট-ফ্যান! ম্যাচ দেখার জন্য কাগজ কুড়ানি হল ১২ বছরের খুদে

মায়ের সঙ্গে সপ্তাহের শেষে প্রতিবেশীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আবর্জনা জড়ো করত সে।

Updated: Sep 6, 2019, 06:11 PM IST
একেই বলে ক্রিকেট-ফ্যান! ম্যাচ দেখার জন্য কাগজ কুড়ানি হল ১২ বছরের খুদে

নিজস্ব প্রতিবেদন : ক্রিকেটে-ফ্যান বোধ হয় একেই বলে। ক্রিকেটই তার ধর্ম। আর ক্রিকেটাররা ধর্মগুরু। বুঝতে শেখার পর থেকে ক্রিকেটের বাইরে সে যেন কিছু ভাবতেই পারে না। আট বছর বয়স থেকে তার গ্যালারিতে বসে জাতীয় দলের ম্যাচ দেখার স্বপ্ন দেখা শুরু। কিন্তু হাতে টাকা নেই। স্বপ্ন দেখলেই তো আর হল না! ম্যাচ টিকিটের তো অনেক দাম। এত টাকা সে পাবে কোথায়! বাবার সেই সামর্থ নেই যে ছেলেকে ম্যাচ টিকিট এনে দেবেন! এদিকে, অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ জেতার পর সেই আট বছরের ছেলের মাঠে বসে খেলা দেখার যেন জেদ চেপে গিয়েছে।

আরও পড়ুন-  বাঁ-হাতে মদের গ্লাস! 'পানাসক্ত' রবি শাস্ত্রীর ছবি নিয়ে মিম-এর ছড়াছড়ি

আট বছর বয়স থেকে টাকা জমানো শুরু করেছিল ম্যাক্স বেট। মায়ের সঙ্গে সপ্তাহের শেষে প্রতিবেশীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আবর্জনা জড়ো করত সে। বলতে গেলে, সপ্তাহের শেষে কাগজ কুড়ানি হয়ে যেত ম্যাক্স। এমন কাজ করে সে প্রতি বাড়ি থেকে পেত এক ডলার করে। সেই টাকা জমানো শুরু সে। লক্ষ্য ছিল, দেড় হাজার ডলার জমানো। কারণ, তাঁর বাবা বলেছিল দেড় হাজার ডলার জমাতে পারলেই ম্যাক্সকে তিনি ইংল্যান্ডে অ্যাসেজ দেখতে নিয়ে যাবেন। চার বছর ধরে তিল তিল করে টাকা জমিয়ে শেষে অ্যাসেজ দেখার সুযোগ পেল ম্যাক্স।

আরও পড়ুন-  কোহলির এ কেমন বেশ! নেটিজেনদের প্রশ্ন, ট্রাফিক চালান জমা দিয়ে এলেন নাকি?

অ্যাসেজ দেখাই শুধু নয়, প্রিয় তারকাদের সঙ্গে বাসে চড়ার সুযোগও পেল ম্যাক্স। গ্যালারিতে বসে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ম্যাচ দেখার পর ম্যাক্স বেজায় খুশি। ম্যাক্স বলল, ''স্টিভ ও, জস্টিন ল্যাঙ্গার ও নাথান লিঁয়র পাশে বসেছিলাম আমি। স্টিভ স্মিথ ও প্যাট কামিন্স আমার পছন্দের ক্রিকেটার। ওদের সঙ্গেও দেখা করেছি। ল্যাঙ্গার আমাকে প্ল্যান বুক দেখাল। দিনের শেষে জেমস প্যাটিনসনের থেকে একটা জার্সি পেলাম। ওই জার্সিতে অজি দলের সবার অটোগ্রাফ রয়েছে।''