ধোনিকে কর্ণ বানালেন সৌরভরা, ব্যর্থ যুবি

বুধবার বেঙ্গালুরুতে বিজয় হাজারে ট্রফিতে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ট্র্যাজিক হিরো কর্ণ হয়েই থেকে যেতে হল। দিল্লির বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে ২২৫ রান তাড়া করে নেমে ধোনি ৭০ রানের দারুণ একটা ইনিংস খেললেন। কিন্তু তাও তাঁকে হারতে হল। কারণ ধোনিকে সঙ্গ দেওয়ার মত কাউকে খুঁজে পাওয়া গেল না। ধোনি ছাড়া ঝাড়খণ্ডের মাত্র দুজন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের রান করেন। কুশল সিং (১৬), অঙ্কিত দাবাস (১৬)। ধোনি শেষ অবধি ৭০ রানে অপরাজিত থেকে যান। ঝাড়খণ্ডের ইনিংস শেষ হয়ে যায় মাত্র ১২৬ রানে।

Updated By: Dec 23, 2015, 05:37 PM IST
ধোনিকে কর্ণ বানালেন সৌরভরা, ব্যর্থ যুবি

ওয়েব ডেস্ক: বুধবার বেঙ্গালুরুতে বিজয় হাজারে ট্রফিতে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ট্র্যাজিক হিরো কর্ণ হয়েই থেকে যেতে হল। দিল্লির বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে ২২৫ রান তাড়া করে নেমে ধোনি ৭০ রানের দারুণ একটা ইনিংস খেললেন। কিন্তু তাও তাঁকে হারতে হল। কারণ ধোনিকে সঙ্গ দেওয়ার মত কাউকে খুঁজে পাওয়া গেল না। শেষ অবধি মহাভারতের কর্ণের মতই রথের চাকা বসে গেল ধোনির।

ধোনি ছাড়া ঝাড়খণ্ডের মাত্র দুজন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের রান করেন। কুশল সিং (১৬), অঙ্কিত দাবাস (১৬)। ধোনি শেষ অবধি ৭০ রানে অপরাজিত থেকে যান। ঝাড়খণ্ডের ইনিংস শেষ হয়ে যায় মাত্র ১২৬ রানে।

ধোনি সেখানে করেন ৭০ রান।  মানে দলের ৫৫.৫৫ শতাংশ রান করেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক। শেষ অবধি একজন ব্যাটসম্যানও ধোনিকে সহায়তা করলে হয়তো ম্যাচের ফলাফল অ্যরকম হতে পারত। সেখানে ইশান্ত জাগ্গি, সৌরভ তিওয়ারিরা ধোনিকে সামান্য সাহায্য পর্যন্ত করতে পারলেন না।

প্রথমে ব্যাট করে গৌতম গম্ভীরের অধিনায়কত্বে খেলা দিল্লি করেছিল ২২৫ রান। শিখর ধাওয়ান করেন ৫৫ রান, গম্ভীর ২০।

এদিকে, আলুরে অন্য কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যাচে যুবরাজ সিংয়ের পঞ্জাব হেরে গেল হিমাচল প্রদেশের কাছে। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে পঞ্জাব করেছিল ২৬৩ রান। যুবি করেন ৫ রান। যুবির ব্যর্থতা ঢেকে মনদীপ সিং করেন ১১৯ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে চার বল বাকি থাকতেই হিমাচল প্রদেশকে জয় এনে দেন রবিন বিস্ত (১০৯ অপ)।