COVID-19: সামনেই লম্বা ইংল্যান্ড সফর, প্রথম ডোজ নিলেন Virat Kohli ও Ishant Sharma

করোনা আবহে প্রায় চার মাসের বিদেশ সফরে যাচ্ছে বিরাট কোহলি অ্যান্ড কোং।

Updated By: May 10, 2021, 05:09 PM IST
 COVID-19: সামনেই লম্বা ইংল্যান্ড সফর, প্রথম ডোজ নিলেন Virat Kohli ও Ishant Sharma

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনা (COVID-19) আবহে প্রায় চার মাসের বিদেশ সফরে যাচ্ছে বিরাট কোহলি (Virat Kohli) অ্যান্ড কোং। কঠোর নিয়মকানুন মেনে চলতেই হবে দলের সঙ্গে সফররত সকলকে। আইসোলেশন, করোনা পরীক্ষা ছাড়াও থাকছে কোভিড প্রতিষেধক। গত ১ মে থেকেই ভারতে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে করোনা টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। সেই মতো ক্রিকেটাররা নিজেদের উদ্যোগেই টিকা নিতে শুরু করে দিয়েছেন। শিখর ধাওয়ান ও অজিঙ্কা রাহানের পর সোমবার করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি (Virat Kohli) ও ফাস্ট বোলার ইশান্ত শর্মা (Ishant Sharma)। এর আগে করোনা যুদ্ধেও ব্যাট ধরেছেন কোহলি। অনুষ্কা শর্মার (Anushka Sharma) সঙ্গে ২ কোটি টাকার অনুদান দিয়েছেন তাঁরা। অভিনেত্রী ও প্রযোজক অনুষ্কা নিজেই তহবিল সংগ্রহের প্রচার চালাচ্ছেন 'ইন দিজ টুগেদার' (In This Together) নামে।

ইংল্যান্ডগামী সকলেই ধীরে ধীরে হয়তো করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়ে নেবেন। কিন্তু প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের মধ্যে ব্যবধান রাখতে হবে ৪২ থেকে ৬০ দিনের। দেখতে গেলে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নেওয়ার সময় কোহলিরা থাকবেন ব্রিটিশ মুলুকে। তাহলে দ্বিতীয় ডোজ তাঁরা কী করে নেবেন! টিকা নেওয়ার প্রসঙ্গে দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া বোর্ডের এক সূত্রকে উদ্ধৃত করে বলেছে, "ভারতীয় দলের ক্রিকেটারদের কোভিশিল্ড নেওয়ার পরামর্শই দেওয়া হয়েছে। কারণ অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা লন্ডনজাত। ফলে ভারত থেকে প্রথম ডোজ নিয়ে এসে এখানে দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া যাবে। কোভিশিল্ড ছাড়া অন্য কোনও টিকা নিলে ইংল্যান্ডে কাজে আসবে না।"

আরও পড়ুন: ইংল্যান্ড সফরের জন্য দেশ-বিদেশ মিলিয়ে ১৮ দিনের নিভৃতবাস টিম ইন্ডিয়ার

লন্ডনে যাওয়ার আগে সংবাদ সংস্থা এএনআই কথা বলেছিল বোর্ডের এক আধিকারিকের সঙ্গে। তিনি বলছেন, "ভারত সরকার এখন ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলকে করোনা টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে। বিসিসিআই এই নিয়ে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলছে। চেষ্টা করছি, খেলোয়াড়দের দ্বিতীয় ডোজের টিকা ইংল্যান্ডে গিয়ে দেওয়ানোর ব্যাপারটা যাতে নিশ্চিত করা যায়। যদি সেদেশের সরকার ইংল্যান্ডে গিয়ে টিকাকরণের অনুমোদন না দেয়, তাহলে আমাদেরই ভারত থেকে দ্বিতীয় ডোজের টিকা সঙ্গে করে নিয়ে যেতে হবে। দেখা যাক আগামী দিনে বিষয়টা কী দাঁড়ায়!"