'রোনাল্ডোম্যান' আঁকতে চান ইস্টবেঙ্গলের প্রাক্তন কোচ রাইডার!

Updated By: Dec 4, 2015, 04:16 PM IST
'রোনাল্ডোম্যান' আঁকতে চান ইস্টবেঙ্গলের প্রাক্তন কোচ রাইডার!

স্বরূপ দত্ত

ফিলিপ ডি রাইডার। ইস্টবেঙ্গলের প্রাক্তন বেলজিয়ান কোচ। অবশ্য তাঁর পরিচয় শুধু এটুকুতেই বা শেষ হয় কোথায়! ৫১ বছর বয়সি এই পেশাদার ফুটবল কোচ, ফুটবলার জীবনে বেলজিয়ামের

অনূর্ধ্ব ১৪, ১৬, ১৮ এবং ২০ দলের অধিনায়কও ছিলেন। পরে কোচিং জীবন শুরু করেন, আরডব্লুডি মোলিনবিক থেকে। এরপর ২০০৫ এ ইস্টবেঙ্গলের হাত ধরে আসেন ভারতে। তারপর

ইউনাইটেড স্পোর্টস, দ্বিতীয় দফায় ইস্টবেঙ্গল, সিকিম ইউনাইটেড, রেইটলাং এফ সিতে কাটিয়ে এখন রয়েছেন চিনের বেজিংয়ে। অল্প সময়ের মধ্যে আইএসএল-পূর্ব ভারতীয় ফুটবলের ধারনা

অনেকটাই বদলে দিয়েছিলেন এই লড়াকু চরিত্রের বেলজিয়ান কোচ। দূরে থেকেও এখনও ইস্টবেঙ্গলের সব খবর রাখেন। মনে পড়ে লাল-হলুদ সমর্থকদের। অবশ্য রাইডার মানে তো শুধু ফুটবল

নয়, রাইডার যে বহুমূখী প্রতিভার আর এক নাম। তিনি স্যাক্সোফোন বাজান, লেখেন আর অবশ্যই খুব ভাল কার্টুন আঁকেন। সুদূর বেজিং থেকেই ফিলিপ ডি রাইডার ২৪ ঘণ্টা ডট কমকে দিলেন

এক বিশেষ ইন্টারভিউ। যাতে ফুটবল তো থাকলই, সঙ্গে থাকল, তাঁর আঁকা অনেক কার্টুন!মানুষটা যে টিনটিনের স্রষ্টা হার্জের দেশের মানুষ। একটু কার্টুন আঁকবেন না! ফুটবল ছেড়ে শুধু

কার্টুনিস্টের কাজ করলেই এ দেশের অনেক হাউসে মোটা মাইনের চাকির পেতেন অবলীলায়।

প্রশ্ন : এখন কোথায় আছেন? শুনলাম সিকিমের রেইটাং এফসি-তে কোচিং করাচ্ছেন। কেমন লাগছে সেখানে কোচিং করাতে?

রাইডার : এখন আমি চিনের বেজিংয়ে আছি। এখানে দায়ু এফসি নামের এক নতুন ক্লাবে টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হিসেবে কাজ শুরু করেছি। সাহায্য করছি পরের মরশুমে এই ক্লাবটার পরিকাঠামো

যাতে উন্নতি হয়, সেই বিষয়ে। মাস ছয়েক আগেও আমি ছিলাম জর্জিয়াতে। মাঝের সময়ে রাশিয়া এবং তুরস্কতেও ছিলাম। দ্বিতীয় ডিভিশনের একটি ক্লাব আদেলি এফিস-তে কোচিংও করালাম।

ওরা বেশ সমস্যায় ছিল। আমি ওদের সেই সমস্যা থেকে দূর করেছি। আর জর্জিয়াতে যাওয়ার আগে রেইটাং এফসি-তে কোচিং করিয়েছি। ওরা অবনমনের আওতায় ছিল। দলে এমন ৯ জন

ফুটবলার ছিল, যাঁরা কখনও কোনও লিগে খেলেনি। আমি তাদেরকে খেলিয়েও অবনমন বাঁচিয়ে দিলাম। ভাল পারফরম্যান্স, কী বলেন?

প্রশ্ন : কোনও আইএসএল দলের থেকে কোচিংয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন? আইএসএল দেখছেন কি?

রাইডার : না, পাইনি। হ্যাঁ, ইন্টারনেটে কখনও সখনও দেখি।

প্রশ্ন : মনে করেন, আইএসএল ভারতীয় ফুটবলের উন্নতিতে সাহায্য করবে আদৌ?

রাইডার : এটা পুরোটাই পরিস্থিতির উপর নির্ভর করছে। ভারতে ক্রিকেট এতটাই জনপ্রিয় যে, বাকি সব খেলা ঢাকা পড়ে গিয়েছে। সেই দিক থেকে বলতে গেলে, আইএসএল ফুটবলের জনপ্রিয়তা

বাড়াবে। আইএসএলের জন্য মাঠে অনেক দর্শক খেলা দেখতে আসবে। আইএসএলের জন্য একটা ''পেশাদার বিনোদন'' তৈরি হবে, হয়েছে, এটাও ঠিক। প্রশ্ন হচ্ছে, আইএসএল কি ভারতীয়

ফুটবলারদের মান বাড়াবে? এটার প্রমাণ পেতে গেলে, আমাদের আরও একটু সময় অপেক্ষা করতে হবে। আইএসএলের জন্য কি ভারতীয় ফুটবলের ফিফা রাঙ্কিং ভাল হবে? এটাও পরবর্তী সময়ে

জানা যাবে। এটাই কি ভারতীয় ফুটবলারদের উন্নতি করার জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম? না, সেটাও আরও কিছুদিন পর জানা যাবে। তারপরেও এখনও পর্যন্ত আইএসএল যেভাবে চলছে, তাতে একটা

কথা আপাতত বলা যায়, ওঁরা ভাল কাজ করছে।

প্রশ্ন : আইএসএলের কোন দলকে সমর্থন করছেন?

রাইডার : আমি কোনও দলকে সমর্থন করছি না। তবে, এটা ঠিক, যেখানে আমার বেশি বন্ধুরা খেলছে, যেখানে আমার বেশি পরিচিতরা খেলছে, আমি তাদেরই সমর্থন করছি।

প্রশ্ন : এবার আপনার কার্টুন সম্পর্কে কিছু বলুন। আপনার জীবনে কার্টুনের জায়গা কতটা? বিশেষ কোনও লক্ষ্য রয়েছে কার্টুন নিয়ে?

রাইডার : আমার বাবা ফুটবলার খেলতেন। আর মায়ের ছিল শিল্পীসত্ত্বা। আমি ব্রাসেলসের ম্যানেজমেন্ট সেন্টারে ডিজাইন করা শুরু করি। এরপর যাই মেট্রোপলিটন লাইফ ইনসিওরেন্সের সঙ্গে

কাজ করতে। ওরা স্নুপি করত। আমি এরপর আরও বেশি করে কার্টুন আঁকা শুরু করি। ইংল্যান্ড, ক্যানারি আইল্যান্ড এবং স্পেনেও কাজ করি। এখন বেজিংয়ে একটা প্রদর্শনী করার চেষ্টায়

রয়েছি, টিনটিনকে নিয়ে। কেউ যদি ভারতেও এমন কিছু আয়োজন করতে চায়, আমি সানন্দে কাজ করব।

প্রশ্ন : যদি আপনি কোনও ফুটবলারকে নিয়ে কার্টুন ক্যারেক্টর বানাতে চান, তাহলে কাকে নিয়ে বানাবেন?

রাইডার : অবশ্যই রোনাল্ডো। আমার দেখা সেরা ফুটবলার। ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো নয় কিন্তু, ব্রাজিলের রোনাল্ডো। সুপারম্যান, ব্যাটম্যান, স্পাইডারম্যানের পর রোনাল্ডোম্যান করতে চাই আমি।

কেমন হবে? আপনাদের কী মনে হয়?

প্রশ্ন : এখনকার বেলজিয়ান ফুটবল নিয়ে কী বলতে চান?

রাইডার : এই বেলজিয়াম ফুটবল দলে ভারসাম্য খুব ভাল। ব্যক্তিগত দক্ষতার উপর নির্ভরশীল নয়, এটা ভাল লক্ষণ। বেশ কিছু ভাল ফুটবলার এসেছে, যারা আগামী দশকে রাজ করবে,

অন্যদের উঠে আসতে উদ্বুদ্ধ করবে।