কেন সবথেকে এগিয়ে মোহালির সেঞ্চুরি?

মোহালিতে প্রথম সেঞ্চুরি করতে রোহিত নিয়েছেন ১১৭ বল। আর দ্বিতীয়টি এসেছে মাত্র ৩৫ বলে। দ্বিশতরানের শেষ ১০০-কে আরও ভাঙলে দেখা যাচ্ছে- ১০০ থেকে ১৫০ করতে রোহিত খেলেছেন মাত্র ১৮ বল। আর ১৫০ থেকে ২০০ রানে পৌঁছতে রোহিতের লেগেছে ১৭ বল।

Updated By: Dec 14, 2017, 06:52 PM IST
কেন সবথেকে এগিয়ে মোহালির সেঞ্চুরি?

নিজস্ব প্রতিবেদন: একাই দুশো! এই বিরল দৃষ্টান্ত ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম করে দেখিয়েছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। মাস্টার ব্লাস্টারের রেকর্ড ভেঙেছিলেন নজফগড়ের নবাব বীরেন্দ্র সেহবাগ। এরপর সবথেকে কম বয়সী ক্রিকেটার হিসেবে দ্বিশতরানের ক্লাবে ঢুকেছিলেন রোহিতা শর্মা। ২০১৩ সালে বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২০৯ রানের ইনিংস। সেটাই ছিল রোহিতের প্রথম ডবল। পরের বছরই ১৩ নভেম্বর ইডেন দেখেছিল 'রো-হিট' শো। ৩৩ চার আর ৯ ছক্কার ম্যারাথন ইনিংস। এর তিন বছর পর পঞ্জাবের মোহালিতে রোহিতের অপরাজিত ২০৮। যেখানে রয়েছে ১৩ চার আর ১২ ছক্কা। এখন প্রশ্ন, বেঙ্গালুরু, কলকাতা, মোহালি- তিন মাইলফলকের মধ্যে শ্রেষ্ঠ কোনটি? কেবল সর্বোচ্চ স্কোর দিয়ে বিচার না করে পরিসংখ্যান দিয়ে বিচার করলে এগিয়ে থাকবে মোহালির ইনিংসই। কেন? রইল তথ্য পরিসংখ্যান- 

- মোহালিতে প্রথম সেঞ্চুরি করতে রোহিত নিয়েছেন ১১৭ বল। আর দ্বিতীয়টি এসেছে মাত্র ৩৫ বলে। দ্বিশতরানের শেষ ১০০-কে আরও ভাঙলে দেখা যাচ্ছে- ১০০ থেকে ১৫০ করতে রোহিত খেলেছেন মাত্র ১৮ বল। আর ১৫০ থেকে ২০০ রানে পৌঁছতে রোহিতের লেগেছে ১৭ বল। ১০০ থেকে ২০০-তে পৌঁছতে বেঙ্গালুরুতে অসিদের বিরুদ্ধে রোহিত খেলছিলেন ৪২ বল। আর ইডেন গার্ডেন্সে রোহিত খেলেছিলেন আরও বেশি। কলকাতায় রোহিত দ্বিশতরানের জন্য খেলেছিলেন ৫১ বল। এক্ষেত্রে সবথেকে কম বল খেলে দ্বিশতরানের নজিরও গড়েছেন রোহিত। 

- মোহালিতে ভারতীয় ইনিংসের শেষ সাত ওভারে রোহিত শর্মার স্ট্রাইকরেট ছিল ৩০৯.৬৩ (আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে সর্বোচ্চ)। 

- প্রথম সেঞ্চুরি পাওয়ার পর দ্বিতীয় সেঞ্চুরিতে পৌঁছতে রোহিত মেরেছেন ১১ ছক্কা। ১০০ থেকে ২০০-তে পৌঁছত মোহালিতেই সবথেকে বেশি ছয় মেরেছেন রোহিত শর্মা (কলকাতায় ৮, বেঙ্গালুরুতে ১০)। 

আরও পড়ুন- 'মোহালির মন্দিরে মহেন্দ্রই ঈশ্বর', ধোনির পা ছুঁয়ে প্রনাম করতে মাঠে দর্শক