হুগলির ২১টি এলাকা কনটেইনমেন্ট জোন, লকডাউন বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে

কনটেইনমেন্ট জোনের তালিকায় আছে শ্রীরামপুর এবং চন্দননগর মহকুমার ১৪ টি পুরসভা এলাকা এবং ৭টি গ্রামীণ এলাকা।

Edited By: অধীর রায় | Updated By: Jul 8, 2020, 06:00 PM IST
হুগলির ২১টি এলাকা কনটেইনমেন্ট জোন, লকডাউন বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে
জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রাও

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনা সংক্রমণে যে ৭টি জেলা রাজ্য সরকারের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে তারমধ্যে অন্যতম হুগলি। তাই সংক্রমণ মোকাবিলায় বড়সড় পদক্ষেপ নিল জেলা প্রশাসন। হুগলি জেলার মোট ২১টি এলাকাকে কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেছেন জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রাও। এই কনটেইনমেন্ট জোনের তালিকায় আছে শ্রীরামপুর এবং চন্দননগর মহকুমার ১৪ টি পুরসভা এলাকা এবং ৭টি গ্রামীণ এলাকা।

বুধবার হুগলি জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রাও জানান,"কনটেইনমেন্ট জোনের সঙ্গে কিছু বাফার জোনও এই লকডাউনের আওতায় পড়বে। হুগলি জেলার চন্দননগর, ভদ্রেশ্বর, সিঙ্গুর, শ্রীরামপুর, রিষড়া, উত্তরপাড়া, ডানকুনি, চণ্ডীতলা এবং জাঙ্গিপাড়া থানা এলাকার মধ্যে কনটেইনমেন্ট জোনগুলি চিহ্নিত করা হয়েছে। রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী ৯ জুলাই বিকেল ৫টা থেকে এই এলাকাগুলিতে লকডাউন লাগু হবে। অত্যাবশকীয় পণ্যের দোকান ছাড়া অন্য কিছু খোলা থাকবে না। যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। ওই জোনগুলিতে সরকারি বা বেসরকারি সমস্ত অফিস বন্ধ থাকবে।" 

করোনা সংক্রমণ রুখতে ১০০ শতাংশ লকডাউন করতে বদ্ধ পরিকর প্রশাসন। তাই  মানুষের যাতে খাদ্যের সমস্যা না হয় সেদিকে নজর রাখা হবে। করোনার সংক্রমণ রুখতে এবং মানুষকে সচেতন করার জন্য মাস্ক ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। এই বিষয়ে সচেতনতা মূলক ২০০০ হোর্ডিং জেলার বিভিন্ন জায়গায় লাগানো হবে বলে জানান জেলাশাসক। সরকারি নির্দেশিকা না মানলে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন, রাজ্যের কনটেইনমেন্ট জোনে ফের ৭ দিনের লকডাউন