জমিতে ঢুকে ফসল খেয়েছে ছাগল, প্রতিবেশীর মাথা থেঁতলে খুনের চেষ্টা!

আহত  ব্যক্তি বিভূতি সরকার ও অভিযুক্ত কাশীনাথ মণ্ডল দুজনেই ভগবানপুরের বাসিন্দা। তাঁদের বাড়ির মধ্যে ফাঁকা জমি বড় ৪ ফুট। 

Updated By: Oct 31, 2018, 01:57 PM IST
জমিতে ঢুকে ফসল খেয়েছে ছাগল, প্রতিবেশীর মাথা থেঁতলে খুনের চেষ্টা!

নিজস্ব প্রতিবেদন: জমিতে ছাগল ঢোকা নিয়ে দুই প্রতিবেশী বিবাদ। তার জেরে ইঁট দিয়ে মাথা থেঁতলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।  আহত ব্যাক্তি বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন।  ঘটনাটি ঘটেছে মালদার বৈষ্ণবনগরের  শাহবানচক অঞ্চলের ভগবান পুর গ্রামে।  

আরও পড়ুন: সামনে কোনও গাড়ি নেই তবুও সজোরে ব্রেক কষলেন চালক, উল্টে গেল গোটা বাস! কী দেখেছিলেন চালক?

আহত  ব্যক্তি বিভূতি সরকার ও অভিযুক্ত কাশীনাথ মণ্ডল দুজনেই ভগবানপুরের বাসিন্দা। তাঁদের বাড়ির মধ্যে ফাঁকা জমি বড় ৪ ফুট। বিভূতির  পরিবারের অভিযোগ,  কাশীনাথ মন্ডলের  ছাগল প্রায়ই তাঁদের বাগানে ঢুকে ফসল ও কলাবাগান নষ্ট করছিল। বুধবার সকালেও ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে।  দেখতে পেয়ে বিভূতির স্ত্রী কাজললতা কাশীনাথের বাড়িতে যান।  উভয়ের মধ্যে বচসা শুরু হয়।

আরও পড়ুন: “মা তোমার ছোটো ছেলেকে মেরে ফেললাম”

অভিযোগ, কথা কাটাকাটির ফাঁকেই কালীনাথ ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা কাজললতা ও তাঁর ছেলের ওপর হামলা শুরু করেন। ঘটনার কথা শুনে স্ত্রী ও ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন বিভূতি সরকারও।  অভিযোগ, কাশীনাথ বিভূতির মাথা ইঁট দিয়ে মাথা থেঁতলে খুনের চেষ্টা করেন।  বিভূতির স্ত্রীর আর্তনাদ শুনে ছুটে আসেন বাকি প্রতিবেশীরা। স্থানীয়রাই বিভূতিকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় দারিয়াপুর প্রাথমিক চিকিত্সাকেন্দ্রে নিয়ে যান।  সেখানে কাজললতা ও তাঁর ছেলেকে প্রাথমিক চিকিত্সার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু বিভূতির মাথায় গুরুতর চোট লাগায় রক্তক্ষরণ বন্ধ করা সম্ভব হয়নি। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।  বিভূতির পরিবারের  পক্ষ থেকে কাশীনাথ মন্ডল সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে বৈষ্ণব নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।  ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।