BJP: দিলীপ ঘোষের জায়গায় রাজ্য বিজেপির সভাপতি পদে সুকান্ত মজুমদার

আগামিকাল থেকেই সভাপতির দায়িত্ব নেবেন সুকান্ত মজুমদার  

Updated By: Sep 20, 2021, 09:52 PM IST
 BJP: দিলীপ ঘোষের জায়গায় রাজ্য বিজেপির সভাপতি পদে সুকান্ত মজুমদার

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্য বিজেপিতে বড়সড় রদবদল। দিলীপ ঘোষের জায়গায় রাজ্য বিজেপির সভাপতি পদে আনা হল ড. সুকান্ত মজুমদারকে। অন্যদিকে দিলীপ ঘোষকে নিয়ে যাওয়া হল জাতীয় সহ সভাপতির পদে। নতুন পদে সুকান্ত মজুমদারকে শুভেচ্ছা জানালেন দিলীপ ঘোষ।

বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে আজ এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে, দিলীপ ঘোষের জায়গায় রাজ্য বিজেপির সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হল বালুরঘাটের সাংসদ ড. সুকান্ত মজুমদারকে। আগামিকাল থেকেই সভাপতির দায়িত্ব নেবেন সুকান্ত মজুমদার। দিলীপ ঘোষ ও সুকান্ত মজুমদার তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করে দলকে শক্তিশালী করবেন, টুইটে করে জানালেন শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্য বিজেপি সভাপতির বদলকে সময়োচিত সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করলেন তথাগত রায়।

আরও পড়ুন-Covid Vaccine: ৫ থেকে ১১ বছর বয়সীদের দেওয়া যাবে টিকা, জানাল Pfizer এবং BioNTech 

দলের এতবড় দায়িত্ব পেয়ে সুকান্ত মজুমদার জি ২৪ ঘণ্টাকে বলেন, দিলীপদা ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সবার সঙ্গেই কথা হয়েছে। আমার মূল লক্ষ্য দলকে শক্তিশালী করা। দিলীপদা 
দলের যে শক্তিশালী ভিত তৈরি করে গিয়েছেন তাকে আরও মজবুত করাই এখন আমার লক্ষ্য। বাংলার ভবিষ্যতের জন্য আরও শক্তিশালী বিজেপি তৈরির লক্ষ্যই কাজ করব। বাঙালির ভবিষ্যত ও বাঙালির অস্তিত্বের জন্য বিজেপির শক্তিশালী হওয়া প্রয়োজন।

বাবুল সুপ্রিয়র দলত্যাগের প্রসঙ্গ উঠে এল সুকান্তর কথায়। এনিয়ে বালুরঘাটের সাংসদ বলেন, বিজেপি একটি আদর্শ নির্ভর দল। কোনও নেতা নির্ভর দল নয়। নেতা বদল হয়। কিন্তু দলের আদর্শ ঠিকই থাকে। তাই কোনও নেতা চলে গেলে আদর্শ চলে যায় না। কর্মীরা পদ্মফুল দেখে লড়াই করেছেন। আগামীতেও সেটাই করবেন।

রাজ্যে দলের সংগঠন প্রসঙ্গে সুকান্ত বলেন, আলাদা করে উত্তরবঙ্গ নয়, গোটা রাজ্যের জন্যই কাজ করতে চাই। এর আগে তপন শিকদার মালদহের মানুষ ছিলেন। দেখতে গেলে তা উত্তরবঙ্গের মধ্যেই পড়ে। তবে আলাদা করে উত্তরবঙ্গ-দক্ষিণবঙ্গ, এভাবে ভাবতে চাই না।

খুব কম বয়স থেকেই সঙ্ঘের সঙ্গে জড়িত সুকান্ত বাবু বর্তমানে বালুরঘাট কলেজের অধ্যাপক। এলাকায় ভালো মানুষ বলে ইমেজ রয়েছে সুকান্ত মজুমদারের। একসময় দিলীপ ঘোষের পরিবর্তে রাজ্য সভাপতির পদে নাম শোনা গিয়েছিল দেবশ্রী চৌধুরীর। সুকান্ত মজুমদার সম্পর্কে দেবশ্রীর আত্মীয়(ভাই)।

আরও পড়ুন-Cooch Behar: বাড়ছে অজানা জ্বরের প্রকোপ, কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি ৮০ শিশু  

সুকান্ত মজুমদার রাজ্য বিজেপি সভাপতি হওয়ায় তাঁকে স্বাগত জানালেন প্রাক্তন সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এক ফেসবুক পোস্টে আজ দিলীপ ঘোষ লিখেছেন, ভারতীয় জনতা পার্টির পার্টির নতুন রাজ্য সভাপতি হিসেবে ড. সুকান্ত মজুমদারকে অভিনন্দন জানাই ও তাঁর সাফল্য কামনা করি।

সাধারণভাবে তিন বছর করে দুবার কারও সভাপতি থাকার কথা । সেই টার্ম প্রায় শেষ করে ফেলেছিলেন দিলীপ ঘোষ। ফলে যেকোনও সময় এই পরিবর্তন হতে পারতো বলে দাবি করছে গেরুয়া শিবির। কিন্তু মেয়াদ শেষের এক বছর আগেই সরিয়ে দেওয়া হল দিলীপ ঘোষকে। তবে রাজ্য রাজনীতির অন্দরের খবর, রাজ্য বিজেপির সভাপতি হওয়ার পর একের পর এক বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর বেশকিছু মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় হয়েছিল রাজ্য রাজনীতি। পাশাপাশি, গেরুয়া শিবিরের অন্দরের খবর, দলের একাংশের কাছে গ্রহণযোগ্যতা কমছিল দিলীপের। ফলে সভাপতি বদলের দাবি নিয়ে গুঞ্জন ছিল বেশ কিছুদিন থেকেই। বিধানসভা ভোটের পর সেই দাবি আরও জোরাল হয়। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব কোথাও মনে করছিল দল ধরে রাখতে পারছেন না দিলীপ। সূত্রের খবর, তাঁকে যে রাজ্যে সভাপতির পদ থেকে সরানো হচ্ছে তা আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তারপরই তিনি লাদাখ চলে যান। এনিয়ে কখনওই মুখ খোলেননি।

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)