দেবীপক্ষের প্রাক্কালে হাঁসু ও বেজির মধ্যে সংঘর্ষ, গুলিতে জখম এক

পুলিস সূত্রে পাওয়া খবর, এলাকা দখল এবং তোলাবাজি নিয়ে হাঁসু এবং বেজি দুই সমাজবিরোধী গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন গন্ডগোল চলছে

Reported By: সুকান্ত মুখোপাধ্যায় | Edited By: অধীর রায় | Updated By: Sep 17, 2020, 02:39 PM IST
দেবীপক্ষের প্রাক্কালে হাঁসু ও বেজির মধ্যে সংঘর্ষ, গুলিতে জখম এক
নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: দেবীপক্ষের প্রাক্কালে উত্তপ্ত হয়ে উঠল রাজারহাট নতুনপাড়ার ঢিপি এলাকা। বুধবার রাত ৩টের নাগাদ প্রগতি ময়দান থানার অন্তর্গত ওই এলাকার দুই সমাজবিরোধী হাঁসু ও বেজির মধ্যে সংঘর্ষ বাধে বলে খবর। হাতাহাতির পাশাপাশি গুলিও চলেছে বলে অভিযোগ। 

সূত্রের খবর হাঁসু দলের সদস্য উদিয়া বাবুর গুলিতে গুরুতর জখম হয়েছে বেজির দলের সদস্য কোকো। রাতেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় কোকোকে এনআরএস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর অবস্থা আপাতত স্থিতিশীল। এই ঘটনায় উদিয়া বাবুকে গ্রেফতার করছে পুলিস।  

পুলিস সূত্রে পাওয়া খবর, এলাকা দখল এবং তোলাবাজি নিয়ে হাঁসু এবং বেজি দুই সমাজবিরোধী গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন গন্ডগোল চলছে। মাঝেমাঝে এদের মধ্যে সংঘর্ষে এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। বিশ্বকর্মা পুজোর আগেরদিন রাতে মদ খাওয়া নিয়ে কোকোর সঙ্গে উদিয়াবাবুর গন্ডগোল হয়। ঘটনাটি অন্য এলাকায় ঘটেছিল। সেখানে উদিয়াবাবু কোকোকে কিছু না বললেও তাঁর পিছু নেয় । কোকো বাড়ির কাছাকাছি আসতেই তাঁকে গুলি করে উদিয়াবাবু।

আরও পড়ুন- যাঁরা তর্পণের মঞ্চ ভাঙলেন, তাঁদের উর্দি খুলে নেব, বিস্ফোরক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়

সামান্য মদ খাওয়াকে কেন্দ্র করে এই খুন নয়, পুলিসের দাবি। কোকো আর উদিয়াবাবু দুজনে আলাদা গোষ্ঠীর লোক। নানা সময়ে এলাকা দখল, তোলাবাজি নিয়ে সংঘর্ষ হয়। এটা তারই ফল বলে পুলিসের প্রাথমিক অনুমান। কোকো বিগ বাজারে কাজ করলেও অপরাধমূলক কাজের সঙ্গে এদের প্রত্যেকের প্রত্যক্ষ যোগাযোগ। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে,  প্রত্যকের বিরুদ্ধে প্রগতি এবং ট্যাংরা থানা প্রচুর অভিযোগ রয়েছে। ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে। তবে পরিস্থিতি আপাতত স্বাভাবিক।