প্রতিটি জেলার COVID19 হেল্পলাইন নম্বর টুইট ডেরেকের, সঙ্গে মোদী-অমিত-জগদীপকে খোঁচা

 এই নম্বরে ফোন করে করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য পাবেন রোগী ও তাঁর আত্মীয়রা৷  এই নম্বরগুলি সকলের কাছে পৌঁছে দিতে আর্জিও রাখলেন ডেরেক ও’ব্রায়েনের (Derek O'Brien)। 

Updated By: May 18, 2021, 11:55 AM IST
 প্রতিটি জেলার COVID19 হেল্পলাইন নম্বর টুইট ডেরেকের, সঙ্গে মোদী-অমিত-জগদীপকে খোঁচা

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলার রাজনীতিতে এখন জোড়া ফুল ও গেরুয়া শিবিরের কাদা ছোড়াছুড়ি। হেল্প লাইন নম্বর শেয়ার করে প্রাধনমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদী, অমিত শাহ ও জগদীপ ধনখড়কে খোঁচা তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনের (Derek O'Brien)। এদিন মঙ্গলবার তিনি একটি টুইট করেন। যেখানে রয়েছে রাজ্যের সমস্ত জেলার হেল্পলাইন নম্বর। জেলায় জেলায় করোনা রোগীদের সাহায্যের জন্য এবার খোলা হল হেল্পলাইন নম্বর৷ এই নম্বরে ফোন করে করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য পাবেন রোগী ও তাঁর আত্মীয়রা৷  এই নম্বরগুলি সকলের কাছে পৌঁছে দিতে আর্জিও রাখলেন তিনি। 

টুইটে ডেরেক ও 'ব্রায়েনে বলেন, বাংলার প্রতিটি জেলার কোভিড-১৯ হেল্পলাইন নম্বর আপনাদের সকলের জন্য। শেয়ার করুন। ধন্যবাদ।

আমি নিশ্চিত যে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ ও জগদীপ ধনখড় আমাদের রাজ্যকে সত্যিই কতটা ভালবাসেন Growing heart তা দেখানোর জন্য এই জনস্বার্থে প্রচারিত বার্তাটি উদারভাবে রিটুইট করবেন। অগ্রিম ধন্যবাদ। 

প্রসঙ্গত, দিন দুয়েক আগে ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে রাজনীতি করার অভিযোগ করেন তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন (Derek O'Brien)। তিনি ট্যুইট করে লেখেন, কোভিডের সময়ও রাজনীতি হচ্ছে। বাংলা ১০০ দিনের কাজে এখনও ১ নম্বরে আছে। ২০২০ সালে বিপুল সংখ্যায় কর্মদিবস তৈরি হয়েছে এখানে। কিন্তু কেন্দ্রের কাছে রাজ্য সরকার কোন টাকা পায়নি। এই বছর কর্মদিবসের সংখ্যা অর্ধেক করা হয়েছে। কেন্দ্র যুক্তরাষ্ট্র-বিরোধী মানসিকতা নিয়ে রয়েছে।