close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

যার নির্দেশে গুলি চলেছিল সে-ই এখন সাংসদ, বাঁচাতে বেরচ্ছে না রিপোর্ট, মমতাকে খোঁচা মুকুল-অর্জুন-রবিনের

এই রিপোর্ট বের হলে অনেক নেতা, মন্ত্রী ফেঁসে যাবেন।

Updated: Jul 21, 2019, 03:12 PM IST
যার নির্দেশে গুলি চলেছিল সে-ই এখন সাংসদ, বাঁচাতে বেরচ্ছে না রিপোর্ট, মমতাকে খোঁচা মুকুল-অর্জুন-রবিনের

নিজস্ব প্রতিবেদন : তৃণমূলের শহিদ দিবস নিয়ে একযোগে মমতাকে বিঁধলেন মুকুল রায়, অর্জুন সিং ও রবিন দেব। আজ উত্তর ২৪ পরগনার শ্যামনগরের বাসুদেবপুরে এক রক্তদান শিবিরের আয়োজন করেছিল বিজেপি। সেখানেই তৃণমূলের ২১ জুলাই নিয়ে কটাক্ষ করেন মুকুল রায় ও অর্জুন সিং।  

মুকুল রায় কটাক্ষ করেন, "মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার ২১ জুলাইয়ের নামে শহিদদের স্মরণ নিয়ে নাটক শুরু করেছে। অথচ ২১ জুলাইয়ের রিপোর্ট এখনও সরকার বের করতে পারল না কেন?" প্রশ্ন তোলেন তিনি। একেবারে সরাসরি নাম করে তিনি বলেন, "এই রিপোর্ট বের হলে অনেক নেতা, মন্ত্রী ফেঁসে যাবেন। যে মণীশ গুপ্ত গুলি চালানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন, সে-ই এখন রাজ্যসভার সাংসদ।" একই অভিযোগ করেন অর্জুন সিংও। তোপ দাগেন, মণীশ গুপ্ত ছাড়াও অনেক পুলিস অফিসার ও আমলাকে রেহাই দেওয়ার জন্যই রিপোর্ট বার করছে না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

এর পাশাপাশি মুকুল রায় আরও বলেন, "২১ জুলাই শহিদ দিবস পালনের মঞ্চে যেদিন পাগলু ড্যান্স হয়েছে, সেদিন থেকেই শহিদ দিবস নাটকে পরিণত হয়েছে।" এদিন একুশের মঞ্চ থেকে বিজেপিকে নিশানা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "বিজেপিকে ভোট দিলে ভাটপাড়া হয়।" যাকে চ্যালেঞ্জ করে অভিযোগের তির পাল্টা প্রশাসনের দিকেই ঘুরিয়ে দেন মুকুল রায়। বলেন, "ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা জঙ্গলমহলের দায়িত্বে  থাকাকালীন আমি নিজে তখন মন্ত্রী ছিলাম। আমি বহুবার বলেছি রাইফেল নিয়ে যে হার্মাদরা ঘুরছে, তাদের গ্রেফতার করার জন্য। কিন্তু মনোজ ভার্মা স্পষ্ট জানিয়ে দেন, ওদের ধরা যাবে না। ওরা সরকারের লোক। আর সেই মনোজ ভার্মাকে ব্যারাকপুর পুলিস কমিশনারের দায়িত্ব দিলে কীভাবে ভাটপাড়ায় শান্তি ফিরবে?" প্রশ্ন তোলেন মুকুল রায়।

আরও পড়ুন, বিজেপির ধাঁচে বুথস্তর পর্যন্ত কর্মীদের 'টাস্ক' দিতে চলেছে তৃণমূল, ২১-এর মঞ্চে ইঙ্গিত মমতার

শহিদ দিবস পালন নিয়ে কটাক্ষ করেছেন সিপিআইএম নেতা রবিন দেবও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখনও সিপিআইএম-এর 'জুজু' দেখছেন বলে ব্যঙ্গ করেন তিনি। বলেন, "আত্মসমীক্ষা করুন আপনি। আপনি তো বলেছিলেন সিপিআইএম নেই, তাহলে এখনও সিপিআইএমের জুজু দেখছেন কেন? আপনি তো দল ভাঙানোর খেলার কারিগর। আপনার দলে থাকলে হিরের টুকরো, আর বেরিয়ে গেলেই হার্মাদ? দলের এই অবস্থা দেখে উনি এসব ভুল কথা বলছেন।" পাল্টা আক্রমণে জবাব দেন রবিন দেব।