ফ্ল্যাটে পোড়া গন্ধ, হাওড়ায় দরজা ভেঙে মা-ছেলের অগ্নিদগ্ধ দেহ উদ্ধার পুলিসের

মৃত্যুর কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা।

Updated By: Feb 12, 2021, 12:06 AM IST
ফ্ল্যাটে পোড়া গন্ধ, হাওড়ায় দরজা ভেঙে মা-ছেলের অগ্নিদগ্ধ দেহ উদ্ধার পুলিসের

নিজস্ব প্রতিবেদন: মানসিক অবসাদে আত্মহত্যা? ভরসন্ধেয় বন্ধ ফ্ল্যাট থেকে মা ও ছেলের অগ্নিদগ্ধ দেহ উদ্ধার করল পুলিস। মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যায়নি এখনও। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার ব্যাঁটরায়। 

জানা গিয়েছে, ব্যাঁটরা নরসিংহ দত্ত রোডে একটি ফ্ল্যাটে একমাত্র ছেলেকে নিয়ে থাকতেন মমতা কুন্ডু। এদিন সন্ধেয় তাঁদের ফ্ল্যাট থেকে পোড়া গন্ধ পান প্রতিবেশীরা। এরপর কলিং বেল বাজিয়েও মা-ছেলে কারওই সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। খবর দেওয়া ব্যাঁটরা থানায়। পুলিসকর্মী এসে যখন দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকে, তখন ফ্ল্যাটে মমতা ও তাঁর ছেলে আবিরের আগুন ঝলসে যাওয়া দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। মৃতদেহ দুটি ময়নাতদন্তে তদন্তে পাঠানো হয়েছে। কীভাবে এমন ঘটনা ঘটল? প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, একমাত্র ছেলে জন্ম থেকেই শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী। সেকারণে দীর্ঘদিন ধরেই মানসিক অবসাদে ভুগতেন মমতা। তাহলে কি আত্মহত্যা করলেন মা ও ছেলে? প্রাথমিক তদন্তে তেমনই অনুমান পুলিসের। যদিও ঘটনাস্থল থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: চিকিৎসা নেই, ১৬ বছর ধরে ঘরবন্দি মানসিক ভারসাম্যহীন

উল্লেখ্য, দিন কয়েক কলকাতায় জোকায় একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় স্বামী-স্ত্রী ও তাঁদের একমাত্র ছেলের ঝুলন্ত দেহ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা গিয়েছে, গৃহকর্তা বাজার থেকে প্রচুর ধার করেন। ব্যাঙ্কেও মোটা অঙ্কের ঋণ ছিল। কিন্তু সেই ঋণ মেটাতে পারেননি। উল্টে বাজারে ধার -দেনা বেড়েই চলেছিল। আর্থিক কারণেই আত্মহত্যা বলে মনে করা হচ্ছে। কিন্তু কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি ।