close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

সেলফি তুলতে গিয়ে দার্জিলিংয়ে টয়ট্রেন থেকে পা পিছলে পড়ে মৃত্যু রিষড়ার বাসিন্দার

বন্ধু বাবুল বিশ্বাস বলেন, "বেড়াতে যাওয়া আর ছবি তোলা নেশা ছিল প্রদীপের। সেই ছবি তুলতে গিয়েই নিজের প্রাণটা হারাল ও।"

Updated: Oct 10, 2019, 04:20 PM IST
সেলফি তুলতে গিয়ে দার্জিলিংয়ে টয়ট্রেন থেকে পা পিছলে পড়ে মৃত্যু রিষড়ার বাসিন্দার

নিজস্ব প্রতিবেদন : ছবি তোলা ছিল হবি। সেই ছবি তুলতে গিয়েই টয়ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু হল হুগলির রিষড়ার বাসিন্দা প্রদীপ সাক্সেনার।

পঞ্চমীর দিন সপরিবারে দার্জিলিং বেড়াতে গিয়েছিলেন রিষড়ার বাঙুরপার্কের বাসিন্দা পেশায় কেবল অপারেটার প্রদীপ সাক্সেনা। একাদশীর দিন সন্ধ্যায় বাগডোগরা থেকে বিমানে কলকাতা ফেরার কথা ছিল তাদের। সেই মতো সকালে হোটেল চেক আউটও করেন। তারপর ঘুম স্টেশন থেকে ট্রয় ট্রেনে চাপেন প্রদীপবাবু, তাঁর স্ত্রী নম্রতা সাক্সেনা ও মেয়ে অনুশ্রী। ট্রেন যখন ঘুম স্টেশন ছেড়ে বাতাসিয়ার কাছে, তখনই টয়ট্রেনের দরজা খুলে সেলফি তুলতে যান প্রদীপবাবু। আর তাতেই বাধে বিপত্তি।

চলন্ত টয়ট্রেন থেকে পা পিছলে পড়ে যান প্রদীপবাবু। মাথায় গুরুতর চোট পান তিনি। পরে দার্জিলিং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। খবর পেয়ে হাসপাতালে যান পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। এদিকে রিষড়ার বাড়িতে এই খবর পৌঁছতেই শোকের ছায়া নেমে আসে। আজ সকালে দেহ এসে পৌঁছয় বাঙুরপার্কের বাড়িতে।

আরও পড়ুন, জিয়াগঞ্জে দম্পতি খুনের নেপথ্যে 'তৃতীয় ব্যক্তির' উপস্থিতি? মোবাইলে পাওয়া ছবিতে লুকিয়ে 'রহস্য'

কেবল ব্যবসার কারণেও এলাকার বহু মানুষ প্রদীপ সাক্সেনাকে চিনতেন। এলাকায় খুবই জনপ্রিয় ছিলেন প্রদীপবাবু। বন্ধু বাবুল বিশ্বাস বলেন, "বেড়াতে যাওয়া আর ছবি তোলা নেশা ছিল প্রদীপের। সেই ছবি তুলতে গিয়েই নিজের প্রাণটা হারাল ও।" মর্মান্তিক এই ঘটনায় শোকস্তব্ধ সাক্সেনা পরিবার।