এখনই ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকা নয় ৪৫ ঊর্ধ্বদের প্রাধান্য়, সিদ্ধান্ত রাজ্য়ের

সোমবার রাজ্য়ে আরও ৭ লক্ষ ৪৫ হাজার কোভিশিল্ড।

Updated By: May 10, 2021, 03:18 PM IST
 এখনই ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকা নয় ৪৫ ঊর্ধ্বদের প্রাধান্য়, সিদ্ধান্ত রাজ্য়ের

নিজস্ব প্রতিবেদন: এখনই ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকা নয়। ৪৫ ঊর্ধ্বদের দ্বিতীয় ডোজের টিকাকরণ শেষ করে, তবেই ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে। এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্য়ের স্বাস্থ্য় অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী।   

তিনি জানান, বর্তমানে ৪৫ ঊর্ধ্বদের টিকাকরণ সম্পূর্ণ করাই রাজ্য়ের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ৪৫ ঊর্ধ্বদের টিকাকরণ শেষ হলে তবেই নিয়ম মতো ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার কাজ শুরু করবে রাজ্য়। ১ মে থেকেই ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকা দেওয়ার জন্য় অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। CoWIN বা আরোগ্য় সেতু অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটে গিয়ে টিকা নেওয়ার জন্য় নাম রেজিস্টার করা যাচ্ছে। তবে, এখনই যে এরাজ্য়ে ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে না, তা স্পষ্ট করেছেন রাজ্য়ের স্বাস্থ্য় অধিকর্তা।    

আরও পড়ুন: শীতলকুচিকাণ্ডে তৎপর CID, CISF-এর ৬ জওয়ানকে তলব

স্বাস্থ্য় দফতর সূত্রে খবর, রবিবার পর্যন্ত রাজ্য়ে প্রায় ১ কোটি ২২ লক্ষ ৭৪ হাজার ২০০ ডোজ টিকা এসেছে। এর মধ্য়ে রবিবার পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ১ কোটি ১৯ লক্ষ ৬৩ হাজার ৫৩২ ডোজ। সোমবার রাজ্য়ে আসছে আরও ৭ লক্ষ ৪৫ হাজার কোভিশিল্ড। সূত্রের খবর, এর মধ্য়ে প্রায় সাড়ে ৩ লক্ষ ডোজ টিকা কিনেছে রাজ্য় সরকার। কেন্দ্রের তরফে পাঠানো হয়েছে আরও ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার ডোজ টিকা। জানা গিয়েছে, করোনার দ্বিতীয় ডোজের টিকাকরণের নিরিখে সমগ্র দেশে পশ্চিমবঙ্গ দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। এ রাজ্য়ে দ্বিতীয় ডোজের টিকাকরণের হার ৩৫.৫ শতাংশ। প্রথম স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। সেরাজ্য়ে দ্বিতীয় ডোজের টিকাকরণের হার ৩৬.৪ শতাংশ। 

আরও পড়ুন: ২৪ জন ক্যাবিনেট সদস্যের মধ্যে কে কোন মন্ত্রিত্ব পেলেন?

ভোট প্রচারই হোক বা ভোট পরবর্তী সময়, বারবার কেন্দ্রের কাছে বিনামূল্য়ে টিকা দেওয়ার দাবি করেছেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় (Mamata Banerjee)। আমদানি করা করোনা টিকা, ওষুধ, অক্সিজেন সিলিন্ডার-সহ কোভিড চিকিৎসার সরঞ্জাম করমুক্ত করারও দাবি জানিয়েছেন তিনি। সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠিও লিখেছিলেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। এরপরই টুইটে মুখ্যমন্ত্রীকে পালটা জবাব দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন(Nirmala Sitharaman)। তিনি দাবি করেন, করোনা চিকিৎসায় ব্যবহৃত আমদানি করা ওষুধ, ভ্যাকসিন, অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের উপর থেকে জিএসটি তুলে নিলে, ওইসব সরঞ্জামের দাম আরও বেড়ে যাবে।