দিনহাটায় পারিবারিক দ্বন্দ্বে দলের কর্মী খুনে বিজেপি-কে ফাঁসানোর চেষ্টা তৃণমূলের!

আজিজারের পড়শিরাই দাবি করেন, ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই। 

Updated By: Jun 5, 2019, 11:31 PM IST
দিনহাটায় পারিবারিক দ্বন্দ্বে দলের কর্মী খুনে বিজেপি-কে ফাঁসানোর চেষ্টা তৃণমূলের!

নিজস্ব প্রতিবেদন: দিনহাটায় তৃণমূল কর্মী আজিজার রহমান খুনে নয়া মোড়। ঘটনার নেপথ্যে রাজনীতি নয়, বরং পারিবারিক বিবাদ দায়ী বলে প্রাথমিক তদন্তে মনে করছে পুলিস। গ্রেফতার করা হয়েছে আজিজারের ছেলের শ্বশুর আজহার মিঞা ও তাঁর স্ত্রীকে। 

দিনহাটায় ভরসন্ধ্যায় খুন হন তৃণমূল কর্মী আজিজার রহমান। পেটলা অঞ্চল দিয়ে বাজার করে ফেরার সময় আজিজারকে ডেকে নিয়ে গিয়ে পিটিয়ে খুন করা হয়। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব থেকে শুরু করে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ, প্রত্যেকেই আজিজারকে তৃণমূলের কর্মী বলে দাবি করে খুনের ঘটনায় বিজেপিকে কাঠগড়ায় তোলেন। বিজেপি প্রথমে দাবি করে, এটা তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। তদন্ত নামে পুলিস। 

আজিজারের পড়শিরাই দাবি করেন, ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই। পারিবারিক বিবাদে খুন হয়েছে আজিজার। পাঁচ বছরের আগে আজিজারের ছেলের সঙ্গে আজহার মিঞার মেয়ের বিয়ে হয়। তারপর থেকে দুই পরিবারের মধ্যে তিক্ত সম্পর্ক। সেই বিবাদের জেরেই বুধবার সন্ধেয় খুন হন তৃণমূল কর্মী। তা আরও স্পষ্ট হয়েছে পুলিসের প্রাথমিক পদক্ষেপে। খুনের ঘটনায় আজহার মিঞা ও তাঁর স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিস।

আরও পড়ুন- একুশের আগে রাজ্যজুড়ে ঘাসফুল ছাঁটতে বিজেপির দাওয়াই 'ভাটপাড়া' মডেল

দলীয় কর্মী খুনের পর কোচবিহারে তৃণমূলের জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ জি ২৪ ঘণ্টাকে জানান, সাড়ে ৬টা-পৌনে সাতটা নাগাদ দিনহাটার একটা গ্রামে তৃণমূল কর্মীকে জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে যায় বিজেপির হার্মাদবাহিনী। তাঁকে গলা টিপে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। দিনহাটা হাসপাতালে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি নুর আলম হোসেনকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখিয়েছে বিজেপি। তাদের দাবি, পরিবারিক খুনের ঘটনায় বিজেপিকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে তৃণমূল।