"চিন সঠিক সত্যিটা বলুক", করোনা থেকে সুস্থ হয়েই অনুরোধ অনাবাসী ভারতীয়র

বর্তমানে আমেরিকায় করোনার অভিকেন্দ্র নিউ ইয়র্ক। রবি বাত্রার বাসস্থানও নিউ ইয়র্কেই। শুধুমাত্র নিউ ইয়র্কেই করোনা আক্রান্ত এক লক্ষ ২২ হাজার জন

Updated By: Apr 6, 2020, 07:03 PM IST
"চিন সঠিক সত্যিটা বলুক", করোনা থেকে সুস্থ হয়েই অনুরোধ অনাবাসী ভারতীয়র
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনা ত্রাসে থরহরি কম্প  বিশ্ব। এমন অবস্থায় আমেরিকাবাসী ভারতীয় রবি বাত্রার অনুরোধ, "চিন সঠিক সত্যিটা বলুক। যার দরুন সারা বিশ্বের চিকিৎসক-বিশেষজ্ঞরা করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারবেন।” কয়েকদিন আগে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন অনাবাসী  রবি বাত্রা ও তাঁর স্ত্রী রঞ্জু এবং তাঁর মেয়ে এঞ্জেলা।  এখন তাঁরা সকলেই সুস্থ এবং করোনা মুক্ত।

বর্তমানে আমেরিকায় করোনার অভিকেন্দ্র নিউ ইয়র্ক। রবি বাত্রার বাসস্থানও নিউ ইয়র্কেই। শুধুমাত্র নিউ ইয়র্কেই করোনা আক্রান্ত এক লক্ষ ২২ হাজার জন। মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ১৫৯ জনের। আমেরিকা সহ সমগ্র বিশ্বে মৃত্যুলীলা চালাচ্ছে করোনাভাইরাস। তাই মানবতার স্বার্থে চিনকে সত্যি জানানোর আর্জি জানিয়েছেন এই প্রবাসী ভারতীয়। তিনি বলেন, "যতক্ষণ না প্রতিষেধক বাজারে আসছে, ততক্ষণ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে না। স্কুল, কলেজ, অফিস আগের মত চলবে না।" তাই মানবতার স্বার্থে চিনকে সত্যি জানাতে অনুরোধ করেছেন রবি।

আরও পড়ুন- করোনাভাইরাসে আক্রান্ত চিড়িয়াখানার বাঘ, শুকনো কাশি ৩ সিংহের

নিজের করোনা অভিজ্ঞতার কথা সম্পর্কে রবি বলেছেন, "যখন ১০৪ ডিগ্রি উষ্ণতায় আমার গা পুড়ে যেত, আমার চোখে আমি বরফ লাগাতাম। আমি হাসপাতালে যেতে চাইনি কারণ হাসপাতালের থেকে আমার ঘর বেশি পরিস্কার, আমার মনে হত দরজার বাইরেই মৃত্যু দাঁড়়িয়ে আছে। এই উচ্চ তাপমাত্রা ২-৩ দিন ছিল। ১৬ দিন পরে তাপমাত্রা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হয়।"

তারপর থেকে রবি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা সামাজিক দূরত্ব মেনে নিজেদের আইসোলেশনে রেখেছেন। তাঁরা ভিন্ন শৌচাগার ব্যবহার করেন। এমনকি খাবার টেবিলেও ১০ফুট দূরত্বে বসেন তাঁরা। তাই নিজের এই চরম কষ্টের অভিজ্ঞতার পর রবির অনুরোধ চিন যেন সত্যিটা বলে দেয়।