৪ হাজার গাছ কেটে বারাসত-বনগাঁ রাস্তার সম্প্রসারণ!

বারাসত থেকে বনগাঁ। ৩৫ নম্বর জাতীয় সড়কের এই ৫৮ কিলোমিটার রাস্তা সম্প্রসারণ হচ্ছে। আর তার জন্য কাটা পড়ছে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার গাছ। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু গাছ কেটেও ফেলা হয়েছে। রাস্তা সম্প্রসারণ হলে যানজট মুক্ত শহর তৈরি হবে। উন্নত হবে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্যও। তা বলে গাছ কাটা! কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না পরিবেশকর্মীরা। ইতিমধ্যেই ফেসবুকে পেজ তৈরি করে শুরু হয়েছে প্রচার। 

Updated By: Mar 30, 2017, 10:00 AM IST
৪ হাজার গাছ কেটে বারাসত-বনগাঁ রাস্তার সম্প্রসারণ!

ওয়েব ডেস্ক: বারাসত থেকে বনগাঁ। ৩৫ নম্বর জাতীয় সড়কের এই ৫৮ কিলোমিটার রাস্তা সম্প্রসারণ হচ্ছে। আর তার জন্য কাটা পড়ছে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার গাছ। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু গাছ কেটেও ফেলা হয়েছে। রাস্তা সম্প্রসারণ হলে যানজট মুক্ত শহর তৈরি হবে। উন্নত হবে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্যও। তা বলে গাছ কাটা! কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না পরিবেশকর্মীরা। ইতিমধ্যেই ফেসবুকে পেজ তৈরি করে শুরু হয়েছে প্রচার। 

বনগাঁ-চাকদহ রোগে গাছ কেটে রাস্তা সম্প্রসারণ হয়। কিন্তু তার পরেও সেই রাস্তায় গাছ লাগানো হয়নি বলে অভিযোগ। সেই কথা মাথায় রেখে স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, রাস্তা হোক। তবে তা গাছের বিনিময়ে নয়। গাছ কাটলে যে নষ্ট হয়ে যাবে এলাকার প্রাকৃতিক ভারসাম্য। 

গাছ কাটা যদি না হয়, তাহলে কীভাবে হবে রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ? কীভাবে সমৃদ্ধ হবে  দুদেশের বাণিজ্য? এ প্রশ্নগুলি যখন উঠছে, তখন বিকল্প বাতলে দিচ্ছেন পরিবেশ কর্মীরাই।