জেরায় মিলছে উদয়ন দাসের একের পর এক বান্ধবীর খোঁজ

  জেরায় মিলছে উদয়ন দাসের একের পর এক বান্ধবীর খোঁজ। বান্ধবী পূজা খাটওয়ানিকেও আমেরিকায় চাকরির প্রতিশ্রুতি দেয় উদয়ন। সামনে আসছে জয়শ্রী টাক নামে আরেক বান্ধবীর নাম। তবে তাঁর কোনও খোঁজ মেলেনি। কী হল জয়শ্রীর? দামি গাড়ি, বিদেশ ভ্রমণ, বিলাসি জীবন সেই সঙ্গে একের পর এক বান্ধবী। এটাই ছিল উদয়ন দাসের জীবন। জেরায় ক্রমশ সেই স্পষ্ট হয়েছে। জেরায় সামনে আসছে ভোপালের দুই তরুণীর খোঁজ যারা উদয়নের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। সামনে আসছে জয়শ্রী টাক নামে এক বান্ধবীর নাম। তাঁর ছবি পাওয়া গেছে উদয়নের ল্যাপটপে।জয়শ্রী ও উদয়নের মা একসঙ্গে চাকরি করতেন।জেরায় উদয়নের দাবি, জয়শ্রীর সঙ্গেও প্রেম ছিল তার।তবে মায়ের আপত্তিতে সম্পর্ক ভেঙে যায়। উদয়ন বলেছে জয়শ্রীর বাড়ি অরোরা কলোনিতে। ভোপাল পুলিস অবশ্য সেখানে গিয়ে জয়শ্রীর কোনও খোঁজই পায়নি। তাহলে কি জয়শ্রীরও আকাঙ্ক্ষার মতো পরিণতি হয়েছে? পূজা খাটওয়ানি নামে উদয়নের আরেক বান্ধীবর সম্পর্কেও খোঁজ খবর নিচ্ছে পুলিস। বান্ধবী পূজা খাটওয়ানিকেও আমেরিকায় UN-এ চাকরির প্রতিশ্রুতি দেয় উদয়ন। পূজা উদয়নের সঙ্গে স্কুলে পড়ত ।

Updated By: Feb 12, 2017, 08:05 PM IST
 জেরায় মিলছে উদয়ন দাসের একের পর এক বান্ধবীর খোঁজ

ওয়েব ডেস্ক:  জেরায় মিলছে উদয়ন দাসের একের পর এক বান্ধবীর খোঁজ। বান্ধবী পূজা খাটওয়ানিকেও আমেরিকায় চাকরির প্রতিশ্রুতি দেয় উদয়ন। সামনে আসছে জয়শ্রী টাক নামে আরেক বান্ধবীর নাম। তবে তাঁর কোনও খোঁজ মেলেনি। কী হল জয়শ্রীর? দামি গাড়ি, বিদেশ ভ্রমণ, বিলাসি জীবন সেই সঙ্গে একের পর এক বান্ধবী। এটাই ছিল উদয়ন দাসের জীবন। জেরায় ক্রমশ সেই স্পষ্ট হয়েছে। জেরায় সামনে আসছে ভোপালের দুই তরুণীর খোঁজ যারা উদয়নের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। সামনে আসছে জয়শ্রী টাক নামে এক বান্ধবীর নাম। তাঁর ছবি পাওয়া গেছে উদয়নের ল্যাপটপে।জয়শ্রী ও উদয়নের মা একসঙ্গে চাকরি করতেন।জেরায় উদয়নের দাবি, জয়শ্রীর সঙ্গেও প্রেম ছিল তার।তবে মায়ের আপত্তিতে সম্পর্ক ভেঙে যায়। উদয়ন বলেছে জয়শ্রীর বাড়ি অরোরা কলোনিতে। ভোপাল পুলিস অবশ্য সেখানে গিয়ে জয়শ্রীর কোনও খোঁজই পায়নি। তাহলে কি জয়শ্রীরও আকাঙ্ক্ষার মতো পরিণতি হয়েছে? পূজা খাটওয়ানি নামে উদয়নের আরেক বান্ধীবর সম্পর্কেও খোঁজ খবর নিচ্ছে পুলিস। বান্ধবী পূজা খাটওয়ানিকেও আমেরিকায় UN-এ চাকরির প্রতিশ্রুতি দেয় উদয়ন। পূজা উদয়নের সঙ্গে স্কুলে পড়ত ।

আরও পড়ুন খারিজ হয়ে গেল সম্মিলনি মেডিক্যাল কলেজে স্নাতকোত্তর কোর্সের অনুমোদন

উদয়নের ল্যাপটপে দুজনের ঘনিষ্ঠ ছবি মিলেছে। উদয়নের ল্যাপটপের সব ছবি এডিট করা। তাই কোনও ছবি তোলার তারিখ জানা যাচ্ছে না। পূজার ঠিকানা পেয়েছে পুলিস ।পুলিস পূজার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে। এই মেয়েদেরও কী আকাঙ্ক্ষার মতোই জালে ফেলতে চেয়েছিল ভোপালের সিরিয়াল কিলার।  উদয়নের জালিয়াতিরও আরও তথ্য এসেছে পুলিসের হাতে। উদয়নের মা-বাবা দুজনের পাসপোর্টই জাল। ভোপাল নগর পালিকা পর্ষদ থেকে থেকে মায়ের ভুয়ো ডেথ সার্টিফিকেট বার করে উদয়ন। মৃত্যুর তারিখ দেওয়া হয় ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩।পুলিস জানতে পেরেছে ২০১০-১৬-র মধ্যে এই সব জাল নথি তৈরি করায় উদয়ন। সামনে আসছে অনিকেত তেওয়ারি নামে উদয়নের এক বন্ধুর কথা। ভোপালের ওই কেটারিং ব্যবসায়ীর সঙ্গে মাঝেমধ্যেই মদ্যপানের আসর বসাত উদয়ন।

আরও পড়ুন  জেলা গ্রন্থাগার নির্বাচন ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে উঠল আসানসোল