ওয়ানডে ক্রিকেটে বছরের সেরা অঘটন-৫৫ বলে চাই ১৯ রান- সেখান থেকেও জিততে পারলেন না মিসবা, আফ্রিদিরা

জয় থেকে তখন আর মাত্র ১৯ বলে দূরে ব্যাটিং দল, বল আছে ৫৫ টা, হাতে আরও ৬টা উইকেট। এখান থেকে ব্যাটিং করা দল হারতে পারে কি! হিসাব, অতীত, বিশেষজ্ঞ, আমি, আপনি সবাই বলবে না। শুধু পাকিস্তান ক্রিকেট দল বলবে হ্যাঁ হারা সম্ভব। সেটাই প্রমাণ করলেন শাহিদ আফ্রিদি, মিসবারা। শারজায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে এমন কীর্তিই গড়ল পাকিস্তান। ১৮৩ রান তাড়া করতে নেমে একটা সময় পাকিস্তানের জয়ের জন্য প্রযোজন ছিল মাত্র ১৯ রান, হাতে ৫৫ টা বল আর ৬ টা উইকেট। সেখান থেকে মিসবা উল হকের দল হারাল এক রানে।

Updated: Oct 31, 2013, 12:11 PM IST

জয় থেকে তখন আর মাত্র ১৯ বলে দূরে ব্যাটিং দল, বল আছে ৫৫ টা, হাতে আরও ৬টা উইকেট। এখান থেকে ব্যাটিং করা দল হারতে পারে কি! হিসাব, অতীত, বিশেষজ্ঞ, আমি, আপনি সবাই বলবে না। শুধু পাকিস্তান ক্রিকেট দল বলবে হ্যাঁ হারা সম্ভব। সেটাই প্রমাণ করলেন শাহিদ আফ্রিদি, মিসবারা।
শারজায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে এমন কীর্তিই গড়ল পাকিস্তান। ১৮৩ রান তাড়া করতে নেমে একটা সময় পাকিস্তানের জয়ের জন্য প্রযোজন ছিল মাত্র ১৯ রান, হাতে ৫৫ টা বল আর ৬ টা উইকেট। সেখান থেকে মিসবা উল হকের দল হারাল এক রানে।
৪১ তম ওভারে প্রোটিয়া পেসার সতসোবের বলে যখন উমর আমিন আউট হলেন তখনও বোঝা যায়নি ওয়ানডে ক্রিকেট দেখতে চলেছে অন্যতম সেরা অঘটন। লাহোরে জন্ম দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনার ইমরান তাহির এরপরেই পাকিস্তানের ইনিংসকে তাসের ঘরের মত ভেঙে দিলেন। ১১টা বলে তাহির নিলেন ৩ উইকেট। শেষ উইকেটে সঈদ আজমল-মহম্মদ ইরফান তাহিরকে করতে হত ৭ রান।
কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার করা ১৮৩ রানের স্কোর থেকে মাত্র ১ রান দূরে শেষ হয়ে গেল যাবতীয় প্রতিরোধে। মর্কেলের বলে বোল্ড হয়ে গেলেন ইরফান। শেষ ১৮ রানের মধ্যে পাকিস্তানে হারায় উমর আমিন, উমর আকমল, তানবির, আফ্রিদি, রিয়াজ, ইরফানকে। ৪ উইকেটে ১৬৪ থেকে পাকিস্তান অলআউট মাত্র ১৮২ রানে। এর আগে সইদ আজমলের ৪ উইকেটের সৌজন্যে ডিভিলিয়ার্সরা অল আউট হয়ে যায় মাত্র ১৮৩ রানে। এই ম্যাচের শেষ ১০টা ওভারকে বছরের সেরা ওয়ানডে হিসাবে দেখছে ক্রিকেটমহল।
গাদাগাদা রান, ব্যাটসম্যানদের পিকনিক দেখে অভ্যস্ত হয়ে পড়া দর্শকরা বুঝলেন ক্রিকেটে উইকেট পড়া, একটা একটা রানের জন্য লড়াই, লো স্কোরিং ম্যাচ এখনও দারুণ মজার, আর দমবন্ধ করা উত্তেজনার। ধোনিদের ৩৫০ রান তাড়ার করার দিনেই ক্রিকেট বিশ্বের অন্য প্রান্ত দেখল একেবারে অন্য রকম সৌন্দর্য। যেখানে ব্যাট নয় বল আর স্নায়ুর লড়াই শেষ কথা বলল।