লোকসভা নির্বাচনে ভোট বাড়বে বামেদের, দাবি বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের

লোকসভা নির্বাচনে বামেদের ভোট বাড়বে। দাবি করলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। সংবাদসংস্থা পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে সিপিআইএম পলিটব্যুরো সদস্যের দাবি, রাজ্যে মহিলাদের নিরাপত্তা নেই। চলছে দুষ্কৃতীরাজ। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মার্কশিটে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী পেয়েছেন বিগ জিরো। সংবাদসংস্থা পিটিআই-কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বর্তমান সরকারকে কাঠগড়ায় তুললেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। শিল্প-কৃষি-আইনশৃঙ্খলা-শিক্ষা-স্বাস্থ্য-সহ সব ক্ষেত্রেই বর্তমান সরকার ব্যর্থ বলে দাবি করে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য বলেছেন, রাজ্যের কোনও মহিলাই সুরক্ষিত নন। এটা ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি। তাঁদের জমানার কথা টেনে এনে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর মন্তব্য, বাম আমলেও রাজ্যে মহিলাদের ওপর অপরাধ হত। কিন্তু তখন আইন মেনে ব্যবস্থা নেওয়া হত। দোষীরা শাস্তি পেত। আর এখন সমাজবিরোধীরাই সব দখল করে নিয়েছে।

বুদ্ধদেবের গালে লাল আবির মাখালেন মমতা, সিটি কেবলের অনুষ্ঠানে ভোটের আগে হোলির রঙে মাতলেন তাবড় রাজনীতিবিদরা

জয়ললিতাকে হারিয়ে শেষ রাউন্ডে কুর্সি ছিনিয়ে নিলেন লালুপ্রসাদ। বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের গালে লাল আবির মাখিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোটের আগেই এক মঞ্চে হোলি খেললেন রাহুল, মনমোহন, আন্না, কেজরিওয়াল থেকে মোদী, মমতা। ভাবা যায়? ভোট আর বসন্ত উত্‍সবের আবহে এই বেনজির দৃশ্য দেখতে পেলেন শুধুমাত্র কলকাতাবাসী। নেতাজী ইন্ডোর স্টেডিয়ামে সিটি কেবল শোয়ের অনুষ্ঠানে। বাজারে বসন্তের রঙ। আর দেশজুড়ে এখন ছেয়ে গেছে ভোটের রঙ। এই আবহ থেকে মুখ ফেরানোর উপায় নেই এদেরও। হোক না মিউজিক্যাল চেয়ারের গেম শো। তামাম সংবাদমাধ্যম আর উত্‍সাহী জনতার নজর ছিল কুর্শি কার দখলে যায়।

বিধানসভা বয়কট, রানি রাসমণি রোডে প্রতিবাদ সভা, কলকাতা জুড়ে থানা ঘেরাও, বিভিন্নভাবে প্রতিবাদে সরব বামেরা

বিধানসভা বয়কট, রানি রাসমণি রোডে প্রতিবাদ সভা, কলকাতা জুড়ে থানা ঘেরাও। সাম্প্রতিক জ্বলন্ত ইস্যুগুলিতে পথে নেমে প্রতিবাদে সরব হল বামেরা। রাজ্যের মানুষের আস্থা ফেরাতে বামেদের তরফে নেওয়া হয়েছে সর্বাত্মক আন্দোলনের কর্মসূচি। সারদা কেলেঙ্কারীর তদন্তের দাবি জানাতে গিয়ে বৃহস্পতিবার বিধাননগর কমিশারেটে আক্রান্ত হন শিক্ষাবিদ সুনন্দ সান্যাল, সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী, পিডিএস নেতা সমীর পূততুন্ড, কংগ্রেস নেতা সুখবিলাস বর্মারা। তাকে সামনে রেখেই গা ঝাড়া দিয়ে রাস্তায় নামতে চাইছে বামেরা। বৃহস্পতিবারই সে কথা স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, গৌতম দেবরা।