মিলিন্দ সোমনের পর ওয়াংচুকের চিনা পণ্য বয়কটের ডাকে সাড়া অন্যান্য তারকাদের

টিকটক অ্যাপ থেকে ইতিমধ্যেই বিদায় নিয়েছেন অভিনেতা, মডেল মিলিন্দ সোমন। মিলিন্দ পর এবার এগিয়ে এলেন অন্যান্য তারকারাও।

Edited By: রণিতা গোস্বামী | Updated By: May 31, 2020, 02:34 PM IST
মিলিন্দ সোমনের পর ওয়াংচুকের চিনা পণ্য বয়কটের ডাকে সাড়া অন্যান্য তারকাদের

নিজস্ব প্রতিবেদন : মিলিন্দ সোমনের পর এবার আরশাদ ওয়ারসি, রণবীর শোরেরাও চিনা পন্য বয়কটে সামিল হলেন। লাদাখে চিনা আগ্রাসনের পাল্টা সে দেশের পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছেন থ্রি ইডিয়টস খ্যাত সোনম ওয়াংচুক। তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে টিকটক অ্যাপ থেকে ইতিমধ্যেই বিদায় নিয়েছেন অভিনেতা, মডেল মিলিন্দ সোমন। মিলিন্দ পর এবার এগিয়ে এলেন অন্যান্য তারকারাও।

চিনি পন্য বয়কট নিয়ে অভিনেতা আরশাদ ওয়ারসি বলেন, ''আমি সচেতনভাবেই চিনা পন্য ব্যবহার বন্ধ করে দিয়েছি। যেহেতু আমরা যাকিছু ব্যবহার করি, তার বেশিরভাগ পন্যই চিনা, তাই এগুলি থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে আসতে একটু সময় লাগবে। তবে আমি নিশ্চিত একদিন আমাদের দেশ সম্পূর্ণভাবে চিইনিজ পন্য মুক্ত হয়ে উঠবে। আপনাদের সকলেরই এবিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া উচিত।''

আরও পড়ুন-টিকটক ছাড়লাম, ওয়াংচুকের চিনা পণ্য বয়কটের ডাকে সাড়া মিলিন্দের

এই ডাকে সাড়া দিয়েছেন অভিনেতা রণবীর শোরে। তিনি বয়কট চায়না হ্যাজট্যাগে লিখেছেন, ''অবশ্যই ভাইসাব''।

ইতিমধ্যেই এগিয়ে এসেছে টেলি অভিনেত্রী কাম্যা পাঞ্জাবি। তিনি লিখেছেন, ''আমি আমার ফোনে এধরনের অ্যাপ ব্যাবহারই করি না। আমি সকলের কাছে অনুরোধ করবো বানিজ্যিকভাবে জড়িত সমস্ত চিনা পন্যের ব্যবহার বন্ধ করুন। ভারতীয় হিসাবে ভারতীয় পন্য কেনা উচিত।''

এই ডাকে সাড়া দিয়ে এগিয়ে এসেছেন আয়ুষ্মান খুরানা 'ড্রিম গার্ল' পরিচালক রাজ শান্ডিল্য। তিনি লিখেছেন, ''বন্ধুরা আমি তোমাদের সকলের কাছে অনুরোধ করবো, যদি আপনারা দায়িত্ববান নাগরিক হোন, তাহলে চিনা পন্য বয়কট করুন। এই পদক্ষেপে অংশ নিয়ে আপনাদার দেশের অগ্রগতিতে সামিল হোন। ''

আরও পড়ুন-টলিপাড়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস, নিয়মবিধি মেনে মিলল শ্যুটিং শুরুর অনুমতি

অতুল কাসবেকার চিনের বিরোধিতায় ট্রাম্পের প্রশংসা করেছেন, ট্রাম্পের সাংবাদিক সম্মেলনের ওই ভিডিয়ো শেয়ার করে লিখেছেন, ''আপনি চাইলে ট্রাম্পের এই সাংবাদিক সম্মেলন নিয়ে যতখুশি মেমে বানাতে পারেন। চিনের বিরোধিতায় উনি যে সাহস দেখিয়েছেন, তা প্রশংসনীয়। এই মহামারীর জন্য দায়বদ্ধতা দেখিয়ে কারোর একটা এগিয়ে আসা প্রয়োজন ছিল, আমার মনে হয় এবার গোটা বিশ্বের চিনকে একঘরে করার জন্য এগিয়ে আসা উচিত।''

চিনা সংস্থাগুলি ব্যবসা করছে ভারত। তাদের পরিষেবা ব্যবহার করছেন এদেশের নাগরিকরা। সেই টাকাই ঘুরে চলে যাচ্ছে চিনের সেনাবাহিনীর কাছে। শিক্ষা সংস্কারক সোনম ওয়াংচুকের ভিডিয়োবার্তা, চিনকে সেনা বুলেটে জবাব দিচ্ছে। নাগরিকরা দেবেন ওয়ালেটে।' ওই ভিডিয়োটি টুইট করে সুপার মডেল মিলিন্দ সোমন লিখেছেন, টিকটক ছাড়লাম।  #BoycottChineseProducts

জুনে একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, চিনা অ্যাপে টিকটকের সবচেয়ে বেশি ব্যবহারকারী ভারতীয়রাই। ১২ কোটি মানুষ এই অ্যাপ ব্যবহার করেন ভারতে। এই ধরনের অ্যাপগুলি বাতিলের খাতায় ফেলার আহ্বান করেছেন সোনম ওয়াংচুক। লকডাউনে ২০ লক্ষ কোটির আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী দেশকে আত্মনির্ভর হওয়ার ডাক দিয়েছিলেন। স্বদেশি জিনিসপত্র কেনার আবেদন করেছেন মোদী। তার আগে 'মেক ইন ইন্ডিয়া' কর্মসূচিও নিয়েছে তাঁর সরকার। সেই সুরেই হিমালয়ের মাঝে সিন্ধুপারে বসে ওয়াংচুক বলেছেন,''চিনা পণ্য বয়কট করলে সে দেশের অর্থনীতির উপরে চাপ বাড়বে। এর ফলে সরকার পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।'' শুধু বার্তা দেওয়াই নয়, এক সপ্তাহের মধ্যে চিনা মোবাইল ব্যবহার করবেন না বলেও জানিয়েছেন সোনম ওয়াংচুক।

আরও পড়ুন-সোনু সুদের প্রশংসায় মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল, শ্রমিকদের বাড়ি পাঠাতে মিলবে সরকারি সাহায্য