''কঙ্গনা যা বলছে তা বিশ্বাস করি'', এবার 'বলিউড কুইন'এর পাশে সোনু নিগম

 ''কঙ্গনা যদি বলে থাকেন, মহেশ ভাট ওকে চটি ছুঁড়ে মেরেছিলেন, তাহলে আমি সেটা বিশ্বাস করছি।''

Updated By: Jul 26, 2020, 06:50 PM IST
''কঙ্গনা যা বলছে তা বিশ্বাস করি'', এবার 'বলিউড কুইন'এর পাশে সোনু নিগম

নিজস্ব প্রতিবেদন : মহেশ ভাটের বিরুদ্ধে কঙ্গনার অভিযোগ। এবার 'বলিউড কুইন'-এর পাশে দাঁড়ালেন সোনু নিগম। সোনু নিগমের কথায়, ''কঙ্গনা যদি বলে থাকেন, মহেশ ভাট ওকে চটি ছুঁড়ে মেরেছিলেন, তাহলে আমি সেটা বিশ্বাস করছি।''

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মহেশ ভাটের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন কঙ্গনা। বলেন, 'ও লমহে' ছবিটি প্রথমে না করতে চাওয়ার জন্য তাঁকে চটি ছুঁড়ে মেরেছিলেন মহেশ ভাট। কঙ্গনা পালিয়ে বেঁচেছিলেন। এর আগে এই একই বিষয়ে মুখ খুলেছিলেন কঙ্গনার দিদি রঙ্গোলি। বলেছিলেন, ''ও লমহের সময় কঙ্গনার বয়স ছিল মাত্র ১৯। আর ছবি না করতে চাওয়ার জন্য চটি ছুঁড়ে মারা হয়। ও সারারাত কেঁদেছিল। এরপরেও বিশ্বাসঘাতক বলে অপমান করা হয়েছিল ওকে। ও কিছু বলেনি, মুখ বুঝে সহ্য করেছিল।''

আরও পড়ুন-সুশান্তের মৃত্যু: এবার মহেশ ভাট, করণ জোহরের ম্যানেজারকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিস

মহেশ ভাটের বিরুদ্ধে আনা কঙ্গনার এই অভিযোগ নিয়ে সম্প্রতি 'টাইমস নাউ'-এর চ্যাট শোয়ে এসে মুখ খোলেন সোনু নিগম। তিনি বলেন, ''দেখুন কঙ্গনার সঙ্গে আমার তো কখনও দেখা হয়নি। একবারই সামনা সামনি দেখা হয়েছিল। আশাকরি দেখা হবে। তবে আমি ওর প্রতি শ্রদ্ধা রাখি। আমার মনে হয় এভাবে কথা বলার জন্য সাহসের দরকার হয়। আর উনি যদি বলে থাকেন, ওনাকে চটি ছুঁড়ে মারা হয়েছিল। তবে আমি ওর কথায় বিশ্বাস করছি। আর এখানে ইন্ডাস্ট্রির ভিতর ও বাইরের লোকের বিষয় নয়, বিষয়টা হল মানুষ ক্ষমতার সুযোগ নেয়। যদিও আমি ২৫-৩০ বছর ধরে কাজ করছি, এধরনের কোনও ঘটনা আমার সঙ্গে ঘটেনি। তবে কেউ যদি ওনার সঙ্গে এমন কিছু করে থাকেন, যেটা নিয়ে উনি বলছেন, তবে নিশ্চয় সত্যি কথাই বলছেন। বানিয়ে বানিয়ে কেউ এধরনের কথা বলবেন বলে তো মনে হয় না। এটা সম্পূর্ণ বিশ্বাস করার ব্যপার। আমি ওনাকে বিশ্বাস করছি।''

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি কঙ্গনাকে মহেশ ভাট প্রযোজনা সংস্থাই লঞ্জ করেছিল, সেকথা মনে করিয়ে দিয়েছিলেন পূজা ভাট। পাল্টা উত্তরে কঙ্গনা জানান, মহেশ ভাট নন, অনুরাগ বসু তাঁকে প্রথম ছবির জন্য নির্বাচন করেছিলেন।

আরও পড়ুন-ট্রাক্টর নেই, মেয়েদের দিয়েই লাঙ্গল দেওয়াচ্ছেন গরিব চাষী, সহায় হলেন সোনু সুদ