সুশান্তের মৃত্যুর পর ব্যাগ থেকে প্যান কার্ড, আধার কার্ড টেনে বের করেন সন্দীপ!

ওই সময় সুশান্তের পরিবারের কেউ সেখানে হাজির ছিলেন না বলে জানান সন্দীপ সিং 

Edited By: জয়িতা বসু | Updated By: Jun 29, 2020, 02:28 PM IST
সুশান্তের মৃত্যুর পর ব্যাগ থেকে প্যান কার্ড, আধার কার্ড টেনে বের করেন সন্দীপ!
সুশান্তের সঙ্গে সন্দীপ সিং, ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদন : ​সুশান্ত সিং রাজপুতের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল থেকে পোস্ট ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে। পুলিস যেন প্রয়াত অভিনেতার বন্ধু প্রযোজক সন্দীপ সিংকে আবারও জিজ্ঞাসাবাদ করে। এমনই আশঙ্কার কথা প্রকাশ করে মুম্বই পুলিসকে চিঠি পাঠিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুতের পারিবারিক বন্ধু নীলোতপল। যা নিয়ে বেশ শোরগোল শুরু হয়েছে। কিন্তু সন্দীপই একমাত্র ব্যক্তি, সুশান্তের মৃত্যুর পর যিনি প্রথম পৌঁছন প্রয়াত অভিনেতার ব্যান্দ্রার চার্টার রোডের ফ্ল্যাটে।

আরও পড়ুন : সুশান্তকে নিঃশর্তে ভালবাসতেন অঙ্কিতা, মুখ খুললেন প্রয়াত অভিনেতার বন্ধু

একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাতকারে সন্দীপ সিং জানান, সুশান্তের আত্মহত্যার খবর পেয়ে তিনি প্রথম চার্টার রোডের ফ্ল্যাটে পৌঁছন। সেখান থেকে অভিনেতাকে কুপার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া থেকে ময়না তদন্তের সময় থাকা, কিংবা সুশান্তের ব্যাগ থেকে তাঁর আধার কার্ড, প্যান কার্ড বের করে আনা, সব নিজের হাতে করেছেন। যদিও পুরোটাই পুলিসের নির্দেশে। সুশান্তের মৃত্যুর পর সেখানে পরিবারের কেউ হাজির ছিলেন না। প্রথমে তিনি ও মহেশ শেঠি সেখানে হাজির হন। কিন্তু সুশান্তের মৃত্যুর পর নিজেকে সামলাতে পারছিলেন না মহেশ। সেই কারণে নিজেকে সামলে নিয়ে পুলিসের নির্দেশে সুশান্তের ময়না তদন্ত এবং তার জন্য যাবতীয় তথ্য জোগাড় করতে শুরু করেন সন্দীপ সিং।

আরও পড়ুন : ছেলের মৃত্যুর পর কেমন আছেন সুশান্তের বাবা! চোখে জল আসবে শুনলে

প্রিয় বন্ধুর আত্মহত্যার পর দায়বদ্ধ হয়ে তাঁকে যেভাবে একের পর এক কাজ করতে হয়েছে, সেই সব মুহূর্তগুলোর থেকে তিনি যেন বেরিয়ে আসতে পারছেন না। এমনও জানান সন্দীপ সিং। পাশাপাশি তিনি আরও জানান, সুশান্তের মৃত্যুর পর তাঁর পরিবার হাসপাতালে নয়, সরাসরি শ্মশানে পৌঁছয়। ওই সময় সুশান্তের সতকারের আগে পর্যন্ত হাসপাতাল থেকে থানা কিংবা কাগজপত্রের সমস্ত কাজ তাঁকে নিজের হাতেই সামলাতে হয় বলেও জানান সন্দীপ সিং।