বিধানসভায় বাম-তৃণমূল তরজা, মধ্যপন্থা কংগ্রেসের

রাজ্যপালের ভাষণের উপর বিতর্ককে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সকাল থেকে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিধানসভা। বিরোধীদের অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী মুখে যা বলছেন, কাজে তা করছেন না। নতুন সরকারের বয়স ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতিগুলির বাস্তবায়ন হয়নি।

Updated By: Mar 20, 2012, 07:38 PM IST

রাজ্যপালের ভাষণের উপর বিতর্ককে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সকাল থেকে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিধানসভা। বিরোধীদের অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী মুখে যা বলছেন, কাজে তা করছেন না। নতুন সরকারের বয়স ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতিগুলির বাস্তবায়ন হয়নি। জিটিএ চুক্তি নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনেন বিরোধীরা। আনিসুর রহমান বলেন, বিধানসভায় জিটিএ বিল পেশের সময় বিরোধীদের ৫ টি সংশোধনী গ্রহণ করেছিল সরকার। কিন্তু স্বাক্ষরিত চুক্তিতে বিরোধীদের একটি সংশোধনীও রাখা হয়নি কেন তার তদন্তেরও দাবি করেছেন বিরোধীরা।
বিধানসভার অধিবেশন চলার সময় প্রেস কর্নার বন্ধ রাখার প্রসঙ্গ বিরোধীরা তুলতেই সরকারপক্ষের বিধায়করা বাধা দেন। রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় উঠে দাঁড়িয়ে বলেন, স্পিকারের রুলিং নিয়ে বিধানসভায় এভাবে আলোচনা করা যায়না। পরে ওই অংশটি বাদ দেওয়া হয় বিধানসভার কার্যবিবরণী থেকে। অন্যদিকে সরকার পক্ষের অভিযোগের মূল তির ছিল ৩৪ বছরের বাম জমানা। বিতর্কের মধ্যে বহুবার সরকার ও বিরোধীপক্ষের বাদানুবাদে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কক্ষ। তবে গোটা আলোচনাপর্বে কংগ্রেসের ভূমিকা ছিল উল্লেখযোগ্য। সরকারের তীব্র সমালোচনা বা উচ্ছ্বসিত প্রশংসা, কোনওটাই করেননি কংগ্রেস বিধায়কেরা। কংগ্রেসের বিধায়ক দেবপ্রসাদ রায় বলেন, সরকারের সামনে এখনও অনেকগুলি সঙ্কট। তবে পাহাড় সমস্যা বা তরাই ডুয়ার্স নিয়ে নতুন জেলার গঠন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান তিনি।
গত বৃহস্পতিবার রাজ্যপালের দীর্ঘ ভাষণে সাম্প্রতিক কালে রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলির উল্লেখ ছিল না বলে সমালোচনা করেন বিরোধীরা। বিতর্কের সূচনা করেন সিপিআইএম বিধায়ক আনিসুর রহমান। আমরি কাণ্ড, সংগ্রামপুরে বিষমদ কাণ্ড, রাজ্যের বিভিন্ন কলেজে ছাত্র সংঘর্ষের ঘটনা বা পাহাড় নিয়ে সমস্যার উল্লেখ নেই কেন রাজ্যপালের ভাষণে তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।