দাদা কী হবে বলুন তো? কমন প্রশ্নের আনকমন উত্তর খুঁজছে 'কমন ম্যান'

পরীক্ষার আগের সাজেশন হুবুহু মেলেনি শাসকের। লোকসভা, পঞ্চায়েত, পুরসভার প্রশ্নপত্রের সঙ্গে মিলিয়েই বিধানসভার পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র সেট করে পরীক্ষায় বসতে চাইলেও কার্যত সেটা হয়নি। দিল্লির নির্বাচনী পরীক্ষক (নির্বাচন কমিশন) এবার ছিলেন একেবারে কড়া। ৭ দফা প্রশ্ন পত্রে রাজনীতির ভূগোল আর বিজ্ঞানে কাজ করেনি কোনও রাজনৈতিক রসায়ন। তাই, গণ টোকাটুকির প্রশ্নটা এবার আর খাটছে না। 'ছাপ্পা ভোট' হয়েছে একথা বিরোধীরাও দাবি করছেন না। সাধারণ মানুষের কাছে এই ভোটে একশোয় একশো পেয়েছে পুলিস আর সেনা জাওয়ান। আর এই সব 'উলট পুরাণে' বিরোধীদের দাবি ভোটের পাটিগণিতে কাস্তে হাতুড়ি মিলে হয়ে গেছে 'জোট সরকার'। সব পক্ষই মানছেন ২০১৬ বিধানসভা ভোট নজিরবিহীন, বাংলায় এতদিন যে ট্র্যাডিশন ছিল ঠিক তার ভিন্ন মেরুতে ভোট দেখেছে মানুষ, ভোট দিয়েছে মানুষ। একেবারে খাঁটি ভোটের তত্ত্ব লোকচর্চার হট 'কেক'। এখন সওয়াল একটাই কী হবে দাদা?

Updated By: May 17, 2016, 05:23 PM IST
দাদা কী হবে বলুন তো? কমন প্রশ্নের আনকমন উত্তর খুঁজছে 'কমন ম্যান'

কলকাতা: পরীক্ষার আগের সাজেশন হুবুহু মেলেনি শাসকের। লোকসভা, পঞ্চায়েত, পুরসভার প্রশ্নপত্রের সঙ্গে মিলিয়েই বিধানসভার পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র সেট করে পরীক্ষায় বসতে চাইলেও কার্যত সেটা হয়নি। দিল্লির নির্বাচনী পরীক্ষক (নির্বাচন কমিশন) এবার ছিলেন একেবারে কড়া। ৭ দফা প্রশ্ন পত্রে রাজনীতির ভূগোল আর বিজ্ঞানে কাজ করেনি কোনও রাজনৈতিক রসায়ন। তাই, গণ টোকাটুকির প্রশ্নটা এবার আর খাটছে না। 'ছাপ্পা ভোট' হয়েছে একথা বিরোধীরাও দাবি করছেন না। সাধারণ মানুষের কাছে এই ভোটে একশোয় একশো পেয়েছে পুলিস আর সেনা জাওয়ান। আর এই সব 'উলট পুরাণে' বিরোধীদের দাবি ভোটের পাটিগণিতে কাস্তে হাতুড়ি মিলে হয়ে গেছে 'জোট সরকার'। সব পক্ষই মানছেন ২০১৬ বিধানসভা ভোট নজিরবিহীন, বাংলায় এতদিন যে ট্র্যাডিশন ছিল ঠিক তার ভিন্ন মেরুতে ভোট দেখেছে মানুষ, ভোট দিয়েছে মানুষ। একেবারে খাঁটি ভোটের তত্ত্ব লোকচর্চার হট 'কেক'। এখন সওয়াল একটাই কী হবে দাদা?

হ্যাঁ, ট্রেনে-বাসে বুথ ফেরত মানুষ নিজের সমীক্ষায় কেউ জেতালেন তৃণমূলকে। কেউ বলছেন, গদি উল্টে গেল বলে, এককথায় 'জোটের ম্যাজিক'।

হাওড়া থেকে হাবড়া, শিয়ালদাহ থেকে চাকদা আম জনতা এখন বাদাম ভাজা, মিল্কোস, লস্যি, মুড়ির থেকেও নিজের ঠোঁট আর মুখকে বেশি ব্যস্ত রেখেছে যুক্তি-তক্ক-গপ্পে। কী হবে দাদা? ধুস! দিদি ছাড়া বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার মত একটা মুখ দেখান তো? শুরুটা এভাবেই হয়েছিল পাড়ার লাল দা আর সবুজ কাকুর।
 
লাল দা- ঘূষখোররা আবারও সরকার করবে?
সবুজ কাকু- ৩৪ বছরে লুঠ হয়েছে!

লাল দা- বাজারে চাউড় হয়েছে, সারদা-নারদার সরকার আর নেই দরকার।
সবুজ কাকু- মালাবদল করলেই মানুষের মন বদল হয় না (রাহুল গান্ধী ও বুদ্ধদেবের যৌথ সভায়, রাজনীতির মালাবদল)। উন্নয়ন, উন্নয়ন আর উন্নয়ন। দিদির একটাই কথা, কাজের কথা। শেষ কথা। লোকসভা ভোটে তো কম্পাস দিয়ে মাপতে হয়েছে, সিপিএম কোথায়! পঞ্চায়েতে হাওয়া হয়ে গিয়েছে সব বিরোধী।
 
লাল দা- মশাই, সব কি হাতের মোয়া নাকি? উত্তরের হাওয়া ঢুকছে দক্ষিণে। পাহাড় থেকে অশোক মডেল নিয়ে এসেছে। কেমন টাইট দিয়েছে মন্ত্রী গৌতমকে, একেবারে দলের জেলা সভাপতি থেকে নামিয়ে নিয়ে আসতে হয়েছে। নাককাটাদের দলের এবার কানটাও কাটা যাবে। জোটের জোর টক্কর হবে। স্টেশন এসে গেছে, দাদা দেখি নামবো।
সবুজ কাকু- যাচ্ছেন কই, আমিও তো একই বাসে উঠব। আলিমুদ্দিন যাবেন তো? আমি মৌলালি হয়েই তৃণমূল ভবন যাবো। দাঁড়ান দাঁড়ান। এক সঙ্গেই যাবো।

লাল দা- বড্ড গরম। একটু ঠাণ্ডা জল ভরে নিই।
সবুজ কাকু- হা হা হা। দেখলেন তো। এও দিদির দান, 'ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা কুল কুল, এবার আবার তৃণমূল'।
লাল দা- দাদার কথাটা ভুলে গিয়েছেন নাকি! 'ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা কুল কুল, জেলে যাবে তৃণমূল'।

লাল দা- বাসে বড্ড ভিড় হচ্ছে ইদানীং।
সবুজ কাকু- এসি চাপবেন নাকি? ৩৪ বছরে এসি বাস ছিল নাকি?
লাল দা- একটু মুখ বেকিয়ে, এতো সেন্ট্রাল প্রোজেক্ট দাদা।
সবুজ কাকু- আহা, কী আরাম। ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা, কুল কুল। ডবল সেঞ্চুরি। ডবল সেঞ্চুরি। ২০০ আসনে জিতবে। দিদি মুখ্যমন্ত্রী হবে। দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় আসবে ডবল অঙ্ক নিয়ে।
লাল দা- জানেন তো, নারদ মুনি নবান্নে হানা দিয়েছিল। আর সে খবর রটে যেতেই রাজ্যের মানুষ বলছে, 'চোরেদের সরকার, আর নেই দরকার'।
সবুজ কাকু- এত জ্ঞান না দিয়ে, বলুন, কটা আসন পাবেন মশাই?
লাল দা- সে তো ১৯ মে'ই দেখবেন। ক্ষমতায় এবার জোট। 'ম্যাজিক ফিগার'।
সবুজ কাকু- ফিগার তো হয় মডেলের। আপনাদের কী হবে?
লাল দা- একটু আগে বললাম যে, 'অশোক মডেল'।

লাল দা- শিয়ালদাহ এসে গিয়েছে, মৌলালি নামব।
সবুজ কাকু- দাদা ভাড়াটা কিন্তু আমি কাটব! কন্ডাক্টরের দিকে হাত বাড়িয়ে দাদা একটা মৌলালি একটা পার্কসার্কাস দেখি।
লাল দা- কী অদ্ভুদ, সোজা পথে একসঙ্গে এসে শেষে কিন্তু আপনিও 'বা দিকে'। মৌলালি থেকে বা দিকে মোড় নেবে এই বাস। রাজ্যও কিন্তু বামমুখী।
সবুজ কাকু- কিছুটা থমকে, দাদা, রাজ্যে যেই আসুক, তাঁরা শাসকই থাকবে, আমাদের পরিচয় হবে শোষিত।

(স্বতন্ত্র কাল্পনিক দুই চরিত্র। কিন্তু প্লটটা কিন্তু রোজকার)