যে মোদী তিন তালাক রদ করেন, তাঁর কানে কান্না পৌঁছচ্ছে না? 'সুপ্রিম' রায়ে হতাশ কলকাতার 'শাহিনবাগ'

"সবাই ভাবছে, আমরা বাড়ি চলে যাব। কিন্তু আমরা বৃহত্তর আন্দোলেনর পথে হাঁটব।"

Reported By: শ্রাবন্তী সাহা | Edited By: সুদেষ্ণা পাল | Updated By: Jan 22, 2020, 01:53 PM IST
যে মোদী তিন তালাক রদ করেন, তাঁর কানে কান্না পৌঁছচ্ছে না? 'সুপ্রিম' রায়ে হতাশ কলকাতার 'শাহিনবাগ'

নিজস্ব প্রতিবেদন : কেন্দ্রের বক্তব্য না শুনে CAA-NPR-এ কোনও স্থগিতাদেশ নয়। বুধবার শুনানির পর সাফ জানিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। আর শীর্ষ আদালতের এই রায় শুনে মুষড়ে পড়েছেন পার্ক সার্কাসের আন্দোলনকারীরা (Kolkata Sahin Bag)।  

উদ্বেগে, উত্তেজনায় রাতভর দু'চোখের পাতা এক করতে পারেননি কেউ। এখন সবার মন খারাপ। আশা ছিল, দেশভর সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের জেরে সুপ্রিম কোর্টের রায় তাদের পক্ষে আসবে। এমনই আশায় বুক বেঁধেছিলেন পার্ক সার্কাসের আন্দোলনকারীরা। এরইমধ্যে গতকাল, মঙ্গলবার, পার্ক সার্কাসের আন্দোলনকারীদের সঙ্গে এসে দেখা করেন মেধা পাটেকর। পার্ক সার্কাসে আন্দোকারীদের মাঝে দাঁড়িয়ে সিএএ-এনআরসি বিরোধিতায় সুর চড়ান তিনি। মেধা পাটেকরের যোগদানে গতকাল অন্য মাত্রা পায় পার্ক সার্কাসের বিক্ষোভ। কিন্তু, আজকে শীর্ষ আদালতের রায়ের পর মুষড়ে পড়েছেন সবাই। চোখেমুখে হতাশার ছাপ স্পষ্ট।  

এই আন্দোলন, বিক্ষোভের অন্যতম আয়োজক উজমা আলম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, "যে মোদী (Narendra Modi) একসময় তিন তালাক (Tripple Talaq) রদ করতে উদ্যোগী হয়েছিলেন। আইন করে ৩ তালাক রদে মুখ্য ভূমিকা নিয়েছিলেন, মহিলাদের কথা ভেবেছিলেন, তাঁর কানে কি মহিলাদের কণ্ঠস্বর পৌঁছচ্ছে না?" আরেক উদ্যোক্তা আসমাত-এ-জমিন বলেন, "মন ভেঙে গিয়েছে। তবে কিছুতেই পিছপা হব না আমরা। সুপ্রিম কোর্ট এক মাসের সময়সীমা দিয়েছে। সবাই ভাবছে, এই দীর্ঘ সময়ে আমরা বাড়ি চলে যাব। কিন্তু আমরা বৃহত্তর আন্দোলেনর পথে হাঁটব।" স্পষ্ট করে দেন আসমাত।

প্রসঙ্গত, পার্ক সার্কাসের আন্দোলনকারীরা আগেই জানিয়েছিলেন যে, সুপ্রিম কোর্টের রায় দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন তাঁরা। এখন এই অবস্থান বিক্ষোভের ১৫ দিন পার হয়ে গিয়েছে। এবার আন্দোলনকারীরা কোন পথে হাঁটেন, সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুন, কেন্দ্রের বক্তব্য না শুনে CAA-NPR-এ কোনও স্থগিতাদেশ নয়, সাফ জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট

আরও পড়ুন, মঙ্গলবার রাতে পার্ক সার্কাস ময়দানে মেধা পাটকার! সুর চড়ালেন সিএএ, এনআরসি-র বিরুদ্ধে

এদিকে আজ বিক্ষোভস্থলে গিয়ে দেখা যায়, গোটা মাঠ মনীষিদের ছবিতে ঘিরে ফেলা হয়েছে। আগামিকাল ২৩ জানুয়ারি। তাই ২৩ জানুয়ারিকে সামনে রেখে সকল মনীষির ছবির মধ্যে নেতাজির ছবি রয়েছে মুখ্য ভূমিকায়। এছাড়াও গান্ধীজি থেকে আবদুল কালাম, সবার ছবি-ই রয়েছে। কিন্তু কোথাও কোনও রাজনৈতিক নেতানেত্রীর ছবি দেখা যায়নি। রাজনৈতিক রং এড়াতে তাঁরা যে সর্বতোভাবে সচেষ্ট, তা যেন বার বারই তুলে ধরতে চাইছেন পার্ক সার্কাসের আন্দোলনকারীরা ।