'গায়ে হাত-চুমু'! বউবাজারে ভরসন্ধ্যায় রূপান্তরকামী ও তাঁর বন্ধুদের শ্লীলতাহানি পুলিসকর্মীর

গাড়ি চালক বাধা দিতে গেলে তাঁকে মারধর করে হাতও ভেঙে দেয় অভিযুক্ত। 

Reported By: রণয় তেওয়ারি | Edited By: সুদেষ্ণা পাল | Updated By: Sep 22, 2020, 09:19 AM IST
'গায়ে হাত-চুমু'! বউবাজারে ভরসন্ধ্যায় রূপান্তরকামী ও তাঁর বন্ধুদের শ্লীলতাহানি পুলিসকর্মীর
নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন : ঘড়ির কাঁটায় তখন রাত ৮টা। রাতের তখনও কিছুই নয়। ভরসন্ধ্যা। অফিস ফেরতা মানুষজন বাড়ি ফেরার তাড়ায় ব্যস্ত। সেইসময়ই রাত ৮টা নাগাদ বউবাজারে এক রূপান্তরকামী ও তাঁর বন্ধুদের শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠল এক পুলিসকর্মীর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত পুলিসকর্মী তাঁদের গায়ে হাত দেন। চালককে মারধর করেন। এমনকি ওই রূপান্তরকামী ও তাঁর বন্ধুদের উদ্দেশে চুমু ছুঁড়তেও দেখা যায় তাঁকে।

জানা গিয়েছে, সোমবার রাত ৮টা নাগাদ ওই রূপান্তরকামী ও তাঁর দুই বান্ধবী দমদম এলাকায় ত্রাণ দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। সেইসময়ই বউবাজার থানা এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। অভিযোগ, চাঁদনি চকের কাছে একটি রেস্তোরাঁয় কফি খেতে গাড়ি দাঁড় করান তাঁরা। তখনই তাঁদের গাড়ির উপর চড়াও হন কলকাতা পুলিসের এক কর্মী। গাড়ির খোলা কাঁচ দিয়ে ওই রূপান্তরকামী মহিলার গায়ে হাত দেওয়ার চেষ্টা করেন অভিযুক্ত। একাধিকবার বাধা দেওয়ার চেষ্টা করা হয় তাঁকে। তারপরেও অভিযুক্ত পুলিসকর্মী ওই রূপান্তরকামী মহিলার ২ বান্ধবীর গায়ে হাত দেন। অভিযোগ, গাড়ি চালক বাধা দিতে গেলে তাঁকে মারধর করে হাতও ভেঙে দেয় অভিযুক্ত। 

এরপরই এই ঘটনায় ১০০ ডায়েল করে লালবাজারে অভিযোগ জানান নির্যাতিতারা। খবর দেন বউবাজার থানাতেও। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বউবাজার থানার পুলিস কর্মীরা। নির্যাতিতা রূপান্তরকামী মহিলার দাবি, ওই পুলিস কর্মীরাই জানান যে অভিযুক্ত কলকাতা ট্রাফিক পুলিশের অ্যাডিশনাল ওসি অভিজিৎ ভট্টাচার্য। এরপর তাঁরাই তাঁদের নিয়ে বউবাজার থানায় যান। সেখানে এই ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন পশ্চিমবঙ্গ রূপান্তরকামী উন্নয়ন পর্ষদের সদস্য ওই রূপান্তরকামী মহিলা। 

যদিও তাঁদের অভিযোগ, বউবাজার থানাতেও তাঁদের সঙ্গে অসহযোগিতা করা হয়। অনেক টালবাহানার পর শেষে বউবাজার থানা লিখিত অভিযোগ নেয়। তবে এখনও এফআইআর-এর কোনও কপি তাঁদের দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত বউবাজার থানা ও অভিযুক্ত আধিকারিকের কোনও বয়ান পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন, ধৃত জঙ্গির ফেসবুক পোস্ট জুড়ে শুধুই পাকিস্তানের স্তুতি!