দিশা রবির গ্রেফতারিতে অসন্তোষ CM Mamata-র, BJP আইটি সেলকে তুলোধনা

Congress থেকে শুরু করে সমাজবাদী পার্টি, বাম শিবির, দিশার গ্রেফতারির নিন্দা করেছে প্রায় সব বিরোধী পার্টি। 

Updated By: Feb 15, 2021, 06:12 PM IST
দিশা রবির গ্রেফতারিতে অসন্তোষ CM Mamata-র, BJP আইটি সেলকে তুলোধনা

নিজস্ব প্রতিবেদন- সুইডিশ পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গের Toolkit মামলায় বেঙ্গালুরু থেকে পরিবেশ ও সমাজকর্মী দিশা রবিকে গ্রেফতার করেছে  Delhi Police. তাঁর বিরুদ্ধে ভারতের অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব নষ্টের গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। আরও দুই সমাজকর্মী নিকিতা জেকব ও শান্তনুর উপরও নজর রয়েছে দিল্লি পুলিসের। তাঁদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ওয়ারেন্ট জারি করেছে পুলিস। যে কোনও সময় গ্রেফতার করা হতে পারে এই দুজনকেও। দিল্লি পুলিস আদালতে জানিয়েছে, গ্রেটার টুলকিট এডিট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিয়েছিলেন দিশা। এমনকী হোয়াটসঅ্য়াপ গ্রুপ করে দিশা নথি ছড়িয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করেছে দিল্লি পুলিস। পোয়েটিক জাস্টিস ফাউন্ডেশন নামে একটি খালিস্তানি গোষ্ঠীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ছিল। এমন গুরুতর অভিযোগও রয়েছে। যদিও বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় (Mamata Banerjee) এদিন দিশার গ্রেফতারিতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

দিশা এদিন আদালতে ভেঙে পড়েন। তিনি দাবি করেছেন, গ্রেটার টুলকিট তিনি মাত্র একটি লাইন এডিট করেছিলেন। বাকি সমস্ত অভিযোগ তিনি অস্বীকার করেছেন। এদিন বিচারকের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন ২১ বছর বয়সী এই পরিবেশকর্মী। আদালত আপাতত পাঁচদিনের পুলিসি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। ভেগান আন্দোলনসহ একাধিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন দিশা রবি (Disha Ravi)।  দিল্লিতে কৃষক আন্দোলন (Farmer's Protest) সমর্থন করে গত কয়েকদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় অতিসক্রিয় ছিলেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতা ও হিংসা ছড়ানোর জন্য মামলা করেছে পুলিস। তবে দিশার গ্রেফতারিতে বিজেপি সরকারকে আক্রমণ করেছে বিরোধী শিবিরগুলি। Congress থেকে শুরু করে সমাজবাদী পার্টি, বাম শিবির, দিশার গ্রেফতারির নিন্দা করেছে প্রায় সব বিরোধী শিবির। 

আরও পড়ুন-  প্রিয়াঙ্কার হুঙ্কার, ২১ বছরের মেয়েকে ভয় পাচ্ছে সরকার! BJP-র পাল্টা, কাসভের বয়সও ২১ ছিল

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে দিশার গ্রেফতারির প্রসঙ্গ উঠলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ''সকালে দেখলাম খবরটা। প্রেস, সোশ্যাল মিডিয়ায় এটা নিয়ে নিন্দা হচ্ছে। ২১ বছরের মেয়েকে গ্রেফতারের ঘটনা নিন্দনীয়। বিজেপির আইটি সেল চূড়ান্ত নোংরামি করছে। তৃণমূলের নাম করে মিথ্যে রটাচ্ছে। ফোন করে মিথ্যে বলছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালের অনেককে ফোন করেছে। প্রথমে মিষ্টি কথা বলছে। তার পর তৃণমূলকে গালাগাল করছে। সাধারণ মানুষকে অনুরোধ করছি, সব ফোন ধরবেন না। পুলিসকে বলব, এই ধরণের অভিযোগ যখন আসছে কঠোর পদক্ষেপ করতে হবে।''