বুলবুলের জন্য কেন্দ্রের কাছে অতিরিক্ত আর্থিক সাহায্যের দাবিই করেনি রাজ্য: মুকুল

আর্থিক সাহায্য মেলেনি বলে অভিযোগ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

Updated By: Dec 3, 2019, 10:33 PM IST
বুলবুলের জন্য কেন্দ্রের কাছে অতিরিক্ত আর্থিক সাহায্যের দাবিই করেনি রাজ্য: মুকুল

অঞ্জন রায়: বুলবুল নিয়ে রাজ্য সরকারের দাবি খণ্ডন করতে আসরে নেমে পড়ল রাজ্য বিজেপি। সংসদে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিবৃতি উদ্ধৃত করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ খণ্ডন করলেন মুকুল রায়। বিজেপি নেতা সাংবাদিক বৈঠকে দাবি করলেন, অতিরিক্ত আর্থিক সহযোগিতার দাবিই করেনি রাজ্য সরকার। 

বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকায় সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে টুইট করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কেন্দ্রের পর্যবেক্ষকদের দল এসে ঘুরেও গিয়েছে। কিন্তু আর্থিক সাহায্য মেলেনি বলে অভিযোগ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিধানসভায় তিনি বলেন,''বুলবুলের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিধ্বস্ত এলাকাগুলিতে হেলিকপ্টারে পরিদর্শন করে কেন্দ্রীয় দল। ঝড়ের পরের দিন টুইটও করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনওরকম কোনও সাহায্য মেলেনি। লেটস হোপ ফর দ্য বেস্ট।'' রাজ্যসভায় মমতার দাবি খণ্ডন করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই। লিখিতভাবে তিনি দাবি করেন, ২০১৯-২০ সালে ৪১৪ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গকে। পশ্চিমবঙ্গের আপৎকালীন মোকাবিলায় যে তহবিল রয়েছে, সেই তহবিলে কেন্দ্রের যে অংশীদারিত্ব রয়েছে, তাতেই দেওয়া হয়েছে ওই টাকা। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর লিখিত বিবৃতি উদ্ধৃত করে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, ৪১৪ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। অতিরিক্ত সহযোগিতার জন্য দাবিপত্র পেশ করতে হয়। কিন্তু রাজ্য তা করেনি।   

কেন্দ্রের দাবি করেছেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। তাঁর দাবি, কেন্দ্র এক টাকাও দেয়নি। একইভাবে রাজ্যসভায় তৃণমূলের দলনেতা ডেরেক ও'ব্রায়েনের বক্তব্য, চলতি বছর এপ্রিলে ৪১৫ কোটি টাকা পাঠিয়েছিল কেন্দ্র।  কিন্তু সেটা ফণী ঘূর্ণিঝড়ের ১৫-২০ দিন পর। তা ঘূর্ণিঝড় ফণীর জন্য আর্থিক  সহযোগিতা ছিল না। বুলবুলের জন্য তো নয়ই।             

আরও পড়ুন- লন্ডনের মাটিতে বাঙালির আধিপত্য, ইংরেজির পর দ্বিতীয় ভাষার তকমা বাংলাকে