'ঘরে ফেরা'র পর বিধায়ক পদে ইস্তফা দিয়ে রাজ্যসভায় ফিরছেন Mukul Roy?

গত ১১ জুন ঘটা করে তৃণমূলে যোগ দেন মুকুল রায় (Mukul Roy)। 

Updated By: Jul 23, 2021, 09:43 PM IST
'ঘরে ফেরা'র পর বিধায়ক পদে ইস্তফা দিয়ে রাজ্যসভায় ফিরছেন Mukul Roy?

নিজস্ব প্রতিবেদন: 'নিজের ঘরে' ফিরেছেন মুকুল রায় (Mukul Roy)। এবার কি রাজ্যসভায় ফিরবেন কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক? তৃণমূল সূত্রের খবর, রাজ্যসভার প্রার্থী করা হতে পারে মুকুল রায়কে। দীনেশ ত্রিবেদী ইস্তফা দেওয়ার পর ফাঁকা তাঁর আসন। ওই আসনেই সম্ভবত প্রার্থী হতে চলেছেন মুকুল। 

গত ১১ জুন ঘটা করে তৃণমূলে যোগ দেন মুকুল রায় (Mukul Roy)। খাতায় কলমে বিজেপি বিধায়ক মুকুলকে সদ্য পিএসি চেয়ারম্যান হিসেবে বেছে নিয়েছেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এনিয়ে আপত্তি তুলেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। তাঁর বিরুদ্ধে দলত্যাগ বিরোধী আইন প্রয়োগের জন্য স্পিকারের কাছে আবেদন করেছেন। তার শুনানিও হয়েছে। এনিয়ে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে শুরু হয়েছে বিতণ্ডা। তৃণমূলের বক্তব্য,মুকুল এখনও বিজেপি বিধায়ক। রীতি মেনেই বিরোধী দল থেকে পিএসি চেয়ারম্যান বেছে নেওয়া হয়েছে তাঁকে। তার পাল্টা আদালতে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে বিজেপি। সূত্রের খবর, এমন প্রেক্ষাপটে মুকুলকে রাজ্যসভায় নিয়ে যাওয়ার ভাবনাচিন্তা করছে তৃণমূল।         

তৃণমূল সূত্রের খবর, দল ছাড়ার আগে রাজ্যসভায় তৃণমূলের দলনেতা ছিলেন মুকুল রায় (Mukul Roy)। রাজধানীর রাজনীতির সঙ্গে তিনি সড়গড়। দিল্লির ভোটারও। ২০২৪ সালে মোদী বিরোধী জোট গঠনের ডাক দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তাতে অনুঘটক হতে পারেন অভিজ্ঞ মুকুল রায় (Mukul Roy)। তিনি দিল্লিতে থেকে অন্য দলগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলবেন। বিভিন্ন রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতা দখলের লক্ষ্যে যাবে বলে স্পষ্ট করে দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এই রাজ্যগুলিতে সংগঠন বিস্তারের কাজ করতে পারবেন মুকুল।           

তৃণমূল নেতৃত্বের একটা অংশ মনে করছে, বিধায়ক পদ থেকে মুকুল ইস্তফা দিলে চাপ বাড়বে শিশির অধিকারী ও সুনীল মণ্ডলের উপরে। তাঁদের বিরুদ্ধে দলত্যাগ বিরোধী আইন প্রয়োগের দাবি আরও জোরালো হয়ে উঠবে। তখন আর লোকসভার স্পিকারের পক্ষে বিষয়টি বেশি দিন ঝুলিয়ে রাখা সহজ হবে না। আর বর্তমান পরিস্থিতিতে শিশির ও সুনীলের আসনে উপনির্বাচন হলে তৃণমূলের জয় প্রায় নিশ্চিত। এমনকি কৃষ্ণনগর উত্তরও বিজেপি রাখতে পারবে না। সেক্ষেত্রে ২০২৪ সালের আগে বিজেপির আত্মবিশ্বাসে আর একটা ধাক্কা লাগবে।

আরও পড়ুন- জাতীয় রাজনীতিতে আরও একধাপ, তৃণমূলের সংসদীয় দলের চেয়ারপার্সন নির্বাচিত Mamata

 (Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)