তৃণমূলের ভোট-প্ল্যানের ঢাকে কাঠি পড়ল

 শুক্রবার প্রশান্ত কিশোরের কলকাতার ক্যামাক স্ট্রিটের অফিস থেকে উত্তরবঙ্গের তৃণমূলের নীচুতলার নেতাদের সঙ্গে এক ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। উক্ত বৈঠকে উত্তরবঙ্গের সাংগঠনিক কাজকর্ম নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। 

Updated By: Sep 19, 2020, 04:31 PM IST
তৃণমূলের ভোট-প্ল্যানের ঢাকে কাঠি পড়ল

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভোট তো প্রায় এসেই গেল! সব রাজনৈতিক দলই এই পরিস্থিতিতে নিজের ঘরের দিকে তাকিয়ে দেখে-বুঝে নিতে চাইছে তাদের নিজস্ব অবস্থান। এবং সাজিয়ে নিতে চাইছে ঘুঁটি। তৃণমূলও সেই কাজ শুরু করে দিল। শুক্রবার এই মর্মে একটি ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল।

উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে সাংগঠনিক কাজকর্ম নিয়ে ছানবিন করা শুরু হল তৃণমূলের তরফে। শুক্রবার প্রশান্ত কিশোরের কলকাতার ক্যামাক স্ট্রিটের অফিস থেকে উত্তরবঙ্গের তৃণমূলের নীচুতলার নেতাদের সঙ্গে এক ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। উক্ত বৈঠকে উত্তরবঙ্গের সাংগঠনিক কাজকর্ম নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। সেখানেই সাংগঠনিক কাজকর্ম প্রসঙ্গে তীব্র উষ্মা প্রকাশ করলেন শীর্ষ নেতারা। সূত্রের খবর, কোচবিহার, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সাংগঠনিক কাজকর্ম নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শীর্ষ নেতারা। বৈঠকে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সভাপতি, বিধায়ক কিংবা বড় নেতাদের লোকজনকেই শুধু ব্লক সভাপতি বা কোনও সাংগঠনিক পদে বসানো হবে না। বরং দল যাঁকে যোগ্য মনে করবে তাঁকেই বেছে নেওয়া হবে। কারণ, শীর্ষ নেতৃত্ব মনে করছে, যোগ্য ব্যক্তিই পদে বসার অধিকারী এবং দাদা ধরে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ পাওয়ার দিনও শেষ হয়ে গিয়েছে। 

এ দিনের বৈঠকে হাজির ছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী, তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও ভোট-কৌশলী প্রশান্ত কিশোর।