রাজ্যে আর নেই বিদ্যুতের ঘাটতি

একটা সময় ছিল যখন পশিচমবঙ্গের সবাজায়গায় পৌঁছত না বিদ্যুতের আলো। আলো থাকলেও লোডশেডিং ছিল নিত্য দিনের সমস্যা। গত চার বছরে বিদ্যুতের সমস্যা বাংলায় অতীত। দেশের অল্প কয়েকটি রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ একটি যেখানে ২৪ ঘণ্টা পাওয়া যায় বিদ্যুত সরবরাহ। শুধু তাই নয়, হিমাচল ছাড়া পশ্চমবঙ্গই একমাত্র রাজ্য যেখানে কমানো হয়েছে বিদ্যুতের ট্যারিফ।

Updated By: Mar 1, 2016, 09:16 PM IST
রাজ্যে আর নেই বিদ্যুতের ঘাটতি
১. পাম্প সেট, ২. গ্রামে বৈদ্যুতকরণ, ৩. সাগরদিঘী থার্মাল পাওয়ার স্টেশন, ৪. তুর্গা হায়ডেল প্রোজেক্ট

ওয়েব ডেস্ক: একটা সময় ছিল যখন পশিচমবঙ্গের সবাজায়গায় পৌঁছত না বিদ্যুতের আলো। আলো থাকলেও লোডশেডিং ছিল নিত্য দিনের সমস্যা। গত চার বছরে বিদ্যুতের সমস্যা বাংলায় অতীত। দেশের অল্প কয়েকটি রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ একটি যেখানে ২৪ ঘণ্টা পাওয়া যায় বিদ্যুত সরবরাহ। শুধু তাই নয়, হিমাচল ছাড়া পশ্চমবঙ্গই একমাত্র রাজ্য যেখানে কমানো হয়েছে বিদ্যুতের ট্যারিফ। ফলে অল্প খরচে বিদ্যুৎ ব্যবহার এখন সকলের আওতায়। গত চার বছরে ১১টি পিছিয়ে পড়া জেলায় ১৩ লক্ষ ৩৬ হাজার নতুন বিদ্যুত সংযোগ দিয়েছে রাজ্য সরকার। বাকি আরও ৭টি জেলায় কাজ চলছে, ২০১৬-এর মধ্যে যা শেষ হয়ে যাওয়ার কথা।

পড়ূন বিশ্ব বাংলার উদ্যোগে আবার ফিরে আসছে তালপাতার সেপাই

'সেচ বন্ধু' প্রকল্পের আওতায় কৃষকদের প্রয়োজনীয় পাম্প সেট দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য। এই প্রকল্পে অনুমোদিত হয়েছে ৪২৪০ কোটি টাকা। বর্তমানে ডব্লুবিএসিডিসিএল-এর আওতায় রয়েছে ১ কোটি ৫৯ লক্ষ মানুষ। দেশের মধ্যে এই সংখ্যা 'মাইলস্টোন'। মার্চ ২০১৫ থেকে ৬৫ লক্ষ ৭১ হাজার নতুন কানেকশন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ২৫ লক্ষ ১১ হাজার বিপিএল তালিকাভুক্ত। ২৮ লক্ষ বিপিএল তালিকাভুক্তকে বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে বিদ্যুত সংযোগ। এছাড়াও নতুন করে আধুনিকীকরণ করা হয় ডব্লুবিএসিডিসিএল-এর ৩৫ বছর পুরনো জলঢাকা হাইডেল প্রোজেক্টের। সঙ্গে যোগ করে হয়েছে ৯ মেগাওয়াটের একটি নতুন ইউনিটের। দার্জিলিং জেলায় ৩৯৩ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ৩ টি নতুন হায়ডেল জেনারেশন প্লাণ্ট তৈরির প্রস্তাব গ্রহণ করেছে এনএইচপিসি। এখান থেকে উতপন্ন সমস্ত বিদ্যুতই কিনবে ডব্লুবিএসিডিসিএল। এসব ছাড়াও রাজ্যকে বিদ্যুতের সমস্যা থেকে মুক্ত করতে আরও নানা উদ্যোগ নিয়েছে পশিমবঙ্গ সরকার।