মৃদু স্পর্শের জন্য দায়ী প্রোটিন খুঁজে পাওয়া গেল

আলোর মত মৃদু স্টিমুলির কারণে স্তন্যপ্রায়ী প্রাণিদের বিশেষ যে অনুভূতি হয় তার জন্য দায়ী প্রোটিন রিসেপটরকে খুঁজে বার করলেন বিজ্ঞানীরা। বিজ্ঞানীদের এই দলের মধ্যে আছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিজ্ঞানী সঞ্জীব রানাডে। নিউরোসায়েন্সের এক রহস্য উদ্ঘাটন করলেন তিনি।

Updated By: Dec 4, 2014, 04:43 PM IST
মৃদু স্পর্শের জন্য দায়ী প্রোটিন খুঁজে পাওয়া গেল

ওয়েব ডেস্ক: আলোর মত মৃদু স্টিমুলির কারণে স্তন্যপ্রায়ী প্রাণিদের বিশেষ যে অনুভূতি হয় তার জন্য দায়ী প্রোটিন রিসেপটরকে খুঁজে বার করলেন বিজ্ঞানীরা। বিজ্ঞানীদের এই দলের মধ্যে আছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিজ্ঞানী সঞ্জীব রানাডে। নিউরোসায়েন্সের এক রহস্য উদ্ঘাটন করলেন তিনি।

পিএজো টু স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মূল টাচ সেনসর।

বিজ্ঞানীরা ইঁদুরের উপর পরীক্ষা চালিয়ে দেখেছেন যে ইঁদুরের শরীরে Piezo2 আয়ন চ্যানেল প্রোটিন নেই তারা সাধারণ আলোতেও কোন সেনসিটিভিটি প্রকাশ করে না।

বিভিন্ন পরীক্ষার মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা দেখেছেন এই প্রোটিন বিহীন ইঁদুর কীভাবে দ্রুত আলোর মত স্টিমুলিতে সাড়া দেওয়া বন্ধ করে দেয়।

অদ্ভুতভাবে, এই ইঁদুরগুলি আবার ত্বকে ব্যাথা জাগানো স্টিমুলিতে সাড়া দেয়। চিমটি, ঠাণ্ডা, গরমের মত স্টিমুলি গুলিতে তারা রেসপন্স করে।

আলোর মত অপ্রত্যক্ষ স্টিমুলি যে গুলির সেনসেশনের জন্য দায়ী এমন কিছু নার্ভ এন্ডিং যার সঙ্গে piezo2 আয়ন চ্যানেল যুক্ত।

অন্যদিকে প্রত্যক্ষ ও শক্তিশালী, ব্যাথা উদ্রেককারী স্টিমুলিগুলির সেনসেশনের জন্য যে নার্ভ বা স্নায়ুগুলি দাই তাদের নার্ভ এন্ডিংয়ে নিজস্ব আয়ন চ্যানেল আছে, যে গুলি এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

SOURCE: Nature