হনুমান জি-কে ধন্যবাদ, 'রামভক্ত'দের হারিয়ে 'নরম হিন্দুত্বে' আস্থা কেজরীর

বিজলি-সড়ক-শিক্ষা নিয়ে দিল্লিতে ভোটপ্রচার চালিয়ে গিয়েছে আম আদমি পার্টি। 

Updated By: Feb 11, 2020, 04:28 PM IST
হনুমান জি-কে ধন্যবাদ, 'রামভক্ত'দের হারিয়ে 'নরম হিন্দুত্বে' আস্থা কেজরীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: মাফলার ম্যান থেকে এখন তিনি 'হ্যাটট্রিক ম্যান' অরবিন্দ কেজরীবাল। ২০১৫ সালের পুনরাবৃত্তি দেখল ২০২০। কংগ্রেস খাতা খুলতে পারল না। বিজেপিও এক সংখ্যায়। জয় নিশ্চিত হওয়ার পর দলের সদর কার্যালয় থেকে অরবিন্দ কেজরীবাল ঘোষণা করলেন, নতুন ধরনের রাজনীতি শুরু হয়েছে। এটা তার সংকেত। 

বিজলি-সড়ক-পানি নিয়ে দিল্লিতে ভোটপ্রচার চালিয়ে গিয়েছে আম আদমি পার্টি। এর সঙ্গে ছিল কেজরীবালের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি। কেজরীবালের বিকাশ-রাজনীতির মোকাবিলায় শেষবেলায় আগ্রাসী হিন্দুত্বের রাজনীতি শুরু করে বিজেপি। কেজরীকে সন্ত্রাসবাদী বলা থেকে শাহিনবাগকে ভারত ভাগের ষড়যন্ত্রকারী- মেরুকরণের চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী থেকে অমিত শাহ। কিন্তু ভোটের ফলে স্পষ্ট, মেরুকরণের রাজনীতি কাজে দেয়নি রাজধানী। বরং কেজরীওয়ালের উপরে ভরসা করেছেন ভোটাররা। সেটাই মনে করিয়ে দিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। স্ত্রীকে পাশে নিয়ে বললেন,''নতুন রাজনীতির সূচনা হল। তারই ইঙ্গিত দিল দিল্লির ভোট। কাজের জন্য লোকে ভোট দিয়েছেন।''                  

তবে বিজেপির মোকাবিলায় 'নরম হিন্দুত্ব'-এর আশ্রয় নিয়েছিলেন কেজরীবালও। শাহিনবাগ নিয়ে সরাসরি তাঁকে কিছু বলতে শোনা যায়নি। বরং বিষয়টি দিল্লির আইনশৃঙ্খলার উপরেই ছেড়েছিলেন। টিভি চ্যানেলে হনুমান চালিসা পাঠ করেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। কনটপ্লেসে হনুমান মন্দিরে সস্ত্রীক পুজোও দিয়েছিলেন। 'রাম-হনুমান'-কে নিয়ে প্রচারে থাকে বিজেপিই। তারাই বা কেন মেনে নেবে? বিজেপি নেতারা বলতে শুরু করেন, এসব নকল ভক্তি। মন্দিরে জুতো খুলে সেই হাতেই পুজো দিয়েছেন কেজরীবাল। মন্দির অশুচি হয়ে গিয়েছে। তার পাল্টা দেন কেজরীবাল বলেন, ভগবান সবাইকে আশীর্বাদ দেন। বিজেপিকেও দিন।        

কেজরীবালের জয়ের পর তাই প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠল হনুমান। তাও আবার দিনটা মঙ্গলবার। সেটা মনেও করিয়ে দিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। বলেন,''আজ মঙ্গলবার, হনুমান জি-র দিন। হনুমান জিকে ধন্যবাদ। আমাদের শক্তি দিন, যাতে আগামী ৫ বছর সবাই মিলে কাজ করতে পারি।  দিল্লির ২ কোটি মানুষ সঙ্গে নিয়েও আরও সুন্দর শহর তৈরি করব। সকল দিল্লিবাসীকে ধন্যবাদ। কর্মীদের ধন্যবাদ।''

লোকসভা ভোটের আগে শিবভক্ত রাহুল গান্ধী বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি। তবে 'রামভক্ত'দের কুপোকাত করলেন 'হনুমানভক্ত' কেজরীবাল, বলছেন রাজনীতির কারবারিরা।

আরও পড়ুন- কংগ্রেসের ভরাডুবিতে ডুবল বিজেপির স্ট্রাইক রেট,'সিঙ্গল ডিজিটে' মোদীর দল