আতঙ্কের মেয়েবেলা: মেয়ে হওয়ার 'অপরাধ', বাবার পাশবিকতার শিকার দুই শিশু

চলতি বছরের গোড়ার দিকে ভাঙা হাত, শরীরে অসংখ্য মানুষের কামড়ের দাগ, ইস্ত্রির ছ্যাঁকা সহ আরও বেশ কিছু মানবিকতার সীমানা পেরিয়ে বহুদূর চলে যেতে পারা ক্ষত নিয়ে দিল্লির এইম্‌স-এ ভর্তি হয় ফলক। প্রায় দু`মাস যুদ্ধ করে মার্চ মাসের ১৫ তারিখ রাত ৯টা ৪০-এ তিন নম্বর হার্ট অ্যাটাকের কাছে হার মেনেছিল ফলক।

Updated By: Apr 10, 2012, 03:17 PM IST

চলতি বছরের গোড়ার দিকে ভাঙা হাত, শরীরে অসংখ্য মানুষের কামড়ের দাগ, ইস্ত্রির ছ্যাঁকা সহ আরও বেশ কিছু ক্ষত নিয়ে দিল্লির এইম্‌স-এ ভর্তি হয় ফলক। প্রায় দু'মাস যুদ্ধ করে মার্চ মাসের ১৫ তারিখ রাত ৯টা ৪০ মিনিটে তিন নম্বর হার্ট অ্যাটাকের ধকল সামলাতে পারেনি ফলক। একমাস কাটতে না-কাটতেই সেই রোমহর্ষক ভয়াবহতার স্মৃতিকে তাজা করে নিজের মেয়েকে কোমায় পাঠালেন বেঙ্গালুরুর ওমর ফারুক। প্রায় একই সময়, কন্যাসন্তানের 'অভিশাপ' কাটাতে মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে বলি হল দেড়দিনের এক শিশু। সন্তানকে হত্যা করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে বাবা নরেন্দ্র রানাকে। স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে ওমর ফারুককেও।
বেঙ্গালুরুর ঘটনায় স্ত্রী রেশমার অভিযোগ, পণের টাকা না মেটার অসন্তোষ ছিলই, তার উপরে কন্যা আফরিনের জন্ম ওমরের ক্ষোভে ঘৃতাহুতি দেয়। বহুদিন ধরেই স্ত্রীর উপর শারীরিক নিগ্রহ চালিয়েছে ওমর। রেশমার অভিযোগ, জন্মের পর থেকে বাবার নৃশংস নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে আফরিনকেও। রবিবার, বমি ও শ্বাসকষ্টে অসুস্থ আফরিনকে বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে কোমায় রয়েছে সে। বাবার অত্যাচারে গুরুতর আহত আফরিন আদৌ বাঁচবে কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত নন চিকিত্‍সকরা।
অন্যদিকে গোয়ালিয়রে, এখনও-নাম-না-পাওয়া আরেক শিশুকে তারই বাবা হত্যা করেছে তামাক জাতীয় পদার্থ খাইয়ে। তার মায়ের অভিযোগ, পুত্রসন্তান না হওয়ার কারণেই নিজের মেয়েকে হত্যা করেছেন তাঁর শ্বশুরবাড়ির আত্মীয়রা। ময়নাতদন্তের রির্পোটের ভিত্তিতে সোমবার তার বাড়ি থেকেই নরেন্দ্র রানাকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। জেরায় খুনের দায়ে স্বীকার করে নিয়েছে ধৃত।
পরপর দু'টি অমানবিকতার ঘটনায় ফের উঠে এল সমাজে কন্যাসন্তানদের নিরাপত্তাহীনতার কঠিন বাস্তব। প্রসঙ্গত, গত বছরের লিঙ্গ বৈষম্য সূচকে ১৪৬টি দেশের মধ্যে ১২৯তম স্থানে আছে ভারত। দক্ষিণ এশিয়ায় একমাত্র আফগানিস্তান বাদে সব ক'টি দেশের চিত্রই ভারতের থেকে অপেক্ষাকৃত ভাল। মানব উন্নয়নের সূচকেও ভারতের অবস্থান বেশ করুণ। ১৮৭টি দেশের মধ্যে ভারত রয়েছে ১৩৪ নম্বর স্থানে।