Omicron/Covid 19: ফের বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি সিকিমে

কবে থেকে লাগু হচ্ছে এই নিষেধাজ্ঞা?

Updated By: Nov 30, 2021, 11:22 PM IST
Omicron/Covid 19: ফের বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি সিকিমে

নিজস্ব প্রতিবেদন: আতঙ্কের নাম ওমিক্রন (Omicron)। করোনার এই নয়া প্রজাতি নিয়ে যখন রাজ্যগুলিকে সতর্ক করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক, তখন ফের বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হল সিকিমে (Sikkim)। কবে থেকে লাগু হচ্ছে নিষেধাজ্ঞা? ১ ডিসেম্বর অর্থাৎ আগামিকাল থেকেই। এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সিকিমের স্বরাষ্ট্র দফতর।

তখন ভারতে দ্রুতগতিতে ছড়াচ্ছে করোনা সংক্রমণ। গত বছরের মার্চে সিকিমে প্রথমবার বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। সরকারের তরফে নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয়, অন্য দেশ থেকে যাঁরা কাজে, এমনকী পর্যটক হিসেবেও আসবেন, তাঁদের জন্য সিকিমে প্রবেশাধিকার সাময়িক বন্ধ থাকবে। ফলে বিপাকে পড়েছিলেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা। সিকিম সরকারের কাছে এই নির্দেশিকা প্রত্যাহারে আর্জি জানায় কেন্দ্র। কেন্দ্রের পর্যটন দফতরের সচিব যোগেন্দ্র ত্রিপাঠী চিঠি লেখেন সিকিমের মুখ্যসচিব এস সি গুপ্তাকে। শেষপর্যন্ত বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয় সিকিম সরকার।

আরও পড়ুন: Omicorn: ভারতে ওমিক্রন? 'ডেল্টার থেকে ভিন্ন' ভ্যারিয়ান্টে আক্রান্ত দক্ষিণ আফ্রিকা ফেরত ব্যক্তি

তাহলে? ফের ভারতে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। তার উপর দক্ষিণ আফ্রিকায় সন্ধান মিলেছেন করোনা নয়া প্রজাতির ওমিক্রন (Omicron)-র। এই প্রজাতিটিকে ইতিমধ্যেই উদ্বেগজনক হিসেবে চিহ্নিত করেছে  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা WHO।  রাজ্যগুলিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকে নির্দেশ, বিদেশ থেকে আসা লোকজন ও করোনা হটস্পটগুলিতে নজর রাখতে হবে। সঙ্গে বাড়াতে টেস্টের সংখ্যাও। এই পরিস্থিতিতে ফের বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করল সিকিম।

 

আরও পড়ুন: Covid Death: মর্গের ফ্রিজার খুলে চমকে উঠলেন কর্মীরা, ১৫ মাস ধরে পড়ে কোভিড আক্রান্তের দেহ

বাদ গেল না এ রাজ্যও। ওমিক্রন (Omicron) নিয়ে সতর্ক জারি হল জলপাইগুড়িতে। ফুলবাড়িতে ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্ত দিয়ে যাতায়াতের ক্ষেত্রে কোভিড টেস্ট বাধ্যতামূলক বলে ঘোষণা করল জেলা প্রশাসন।  জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু জানান, প্রতিদিন ফুলবাড়ি সীমান্ত দিয়ে গড়ে ৩০ জনেরও বেশি পর্যটক যাতায়াত করেন। সীমান্ত পেরিয়ে যাঁরা ঢুকবেন, তাঁদের আর টি পি সি আর(RTPCR) টেস্ট করা হবে। যদি কারও রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাহলে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।