ছুটে আসছে জঙ্গিদের গুলি! কীভাবে বাচ্চাটিকে বাঁচানো হল, জানালেন সেনা জওয়ান

ওদিক থেকে তখন ছুটে আসছে জঙ্গিদের ছোড়া গুলি। ভারতীয় সেনার জওয়ানদের সাহস আর বুদ্ধিমত্তায় বেঁচে যায় বাচ্চাটি। 

Edited By: সুমন মজুমদার | Updated By: Jul 1, 2020, 06:15 PM IST
ছুটে আসছে জঙ্গিদের গুলি! কীভাবে বাচ্চাটিকে বাঁচানো হল, জানালেন সেনা জওয়ান

নিজস্ব প্রতিবেদন- রোজ সকালের মতো এদিনও নাতিকে সঙ্গে নিয়ে বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু বিপদ মাঝরাস্তায় বসে ছিল ঘাপটি মেরে। সি আর পি এ জওয়ানদের কনভয়ে এলোপাথারি গুলি ছুড়তে শুরু করে জঙ্গিরা। জঙ্গিদের গুলির মাঝে পড়ে যান সেই প্রবীণ মানুষটি। গুলিতে এসে লাগে তাঁর শরীরে। ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। জম্মু কাশ্মীরের সোপোর এলাকায় এদিন সিআরপিএফের কনভয়ে হামলা চালায় জঙ্গিরা। একজন জওয়ান শহিদ হয়েছেন। তিনজন গুরুতর আহত। জঙ্গিদের গুলিতে মারা গিয়েছেন একজন সাধারন মানুষ। তবে এদিন আরও বড় বিপদ হতে পারত। জঙ্গিদের গুলির মাঝে পড়ে গিয়েছিল একটি বাচ্চা। সেই বাচ্চাটির দাদু এদিন জঙ্গিদের গুলিতে নিহত হন। দাদুর মৃতদেহের সামনেই ঘোরাঘুরি করছিল সে। ওদিক থেকে তখন ছুটে আসছে জঙ্গিদের ছোড়া গুলি। ভারতীয় সেনার জওয়ানদের সাহস আর বুদ্ধিমত্তায় বেঁচে যায় বাচ্চাটি। 

ঘটনাস্থলে সবার আগে পৌঁছন সোপোর এলাকার এসএইচও আজিম খান। তিনি বলেছেন, ''সকাল আটটা নাগাদ আমরা খবর পাই। ওই এলাকায় তখন রজের মতো ভিড় ছিল। প্রচুর গাড়ি চলে ওই রাস্তা দিয়ে। জঙ্গিরা উঁচুতে থাকা একটি মসজিদের ওপরের দিকে থেকে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। আমাদের তিনজন জওয়ান আহত হয়। সেই সময় ওই বৃদ্ধ গুলিবিদ্ধ হন। তারপরই আমরা দেখতে পাই একটা বাচ্চা ওই বৃদ্ধের মৃতদেহের পাশে ঘুরছে। আমরা তখনই ওকে বাঁচানোর জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ি। জঙ্গিরা তখনও গুলি ছুড়ে যাচ্ছিল। বাচ্চাটাকে ওখান থেকে বের করে আনা আমাদের কাছে চ্যালেঞ্জিং ছিল। কিন্তু আমরা যে করেই হোক ওকে বাঁচাবো বলে ঠিক করি।''

আরও পড়ুন-  জঙ্গি হামলার মুখে পড়ল খুদে, জীবন বাজি রেখে বাঁচালেন ভারতীয় সেনার জওয়ান

তিনি আরও বলেন, ''সবার আগে আমরা ওই জায়গাটা ব্লক করার চেষ্টা করি। যাতে জঙ্গিদের গুলি আটকানো যায়! সেই সময় সি আর পি এফ ও জম্মু পুলিসের কয়েকটি বুলেটপ্রুফ গাড়ি এনে জায়গাটা ব্লক করা হয়। তারপর আমরা বাচ্চাটিকে উদ্ধার করি। ওকে ওর বাড়ির লোকের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তবে ওর দাদুকে বাঁচাতে না পারার আফসোস রয়েছে আমাদের।''E