close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

বাজার চাঙ্গা করতে করছাড়; রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে ৭০,০০০ কোটি, ঘোষণা সীতারমনের

সীতারমন বলেন, বিশ্বের বাজারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-চিন শুল্ক যুদ্ধ, ডলারের তুলনায় টাকার পতনে বাজারে মন্দা রয়েছে। কিন্তু ভারতের অর্থনীতি এখনও ভালো জায়গাতেই রয়েছে

Updated: Aug 23, 2019, 07:20 PM IST
বাজার চাঙ্গা করতে করছাড়;  রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে ৭০,০০০ কোটি, ঘোষণা সীতারমনের

নিজস্ব প্রতিবেদন: নগদের অভাবে বাজারে দেখা দিয়েছে অভূতপূর্ব মন্দা। এই অবস্থা গত ৭০ বছরে হয়নি। এমনটাই জানিয়েছিলেন নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমার। এবার সেই অবস্থা সামাল দিতে সক্রিয় হল সরকার।

দেশে আর্থিক মন্দা কাটিয়ে উঠতে ও বাজার চাঙ্গা করতে শুক্রবার একগুচ্ছ পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। রাষ্ট্রয়াত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে ৭০,০০০ কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন অর্থমন্ত্রী। এতে শিল্পক্ষেত্রে নগদের জোগান বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন-হজযাত্রীদের নিরাপত্তা দেয় সরকার, একটা ধর্মের জন্য কেন? কচুয়াকাণ্ডে প্রশ্ন দিলীপের   

শিল্পমহলকে খুশি করতে শেয়ার বিক্রির ওপরে যে অতিরিক্ত সার্চচার্জ দিতে হতো তা তুলে নেওয়া হল। পাশাপাশি শিল্পপতিদের বাধ্যতামূলক সামাজিক কাজের যে নীতি সরকার ঘোষণা করেছিল তা তুলে নেওয়া হয়েছে। শিল্পপতিদের ভরসা আদায়ের জন্য ছোট ও মাঝারি শিল্পের একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

আয়করের ক্ষেত্রের কিছু পরিবর্তনের কথা ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী। ২-৫ কোটি আয়ের ক্ষেত্রে সারচার্জ ১৫ থেকে করা হল ২৫ শতাংশ। ৫ কোটির বেশি আয়ের ক্ষেত্রে ১৫-৩৭ শতাংশ সারচার্জ বসানো হল।

গৃহঋণ প্রদানকারী কোম্পানিগুলিকে ন্যাশনাল হাউজিং বোর্ড থেকে ২০,০০০ কোটি টাকা দেওয়া হবে। ঋণ শোধের ১৫ দিনের বন্ধক দেওয়া নথি ফেরত দিতেই হবে।

বকেয়া জিএসটি রিফান্ড মিটিয়ে দেওয়া হবে ৩০ দিনের। আগামীদিনে আবেদনের ৬০ দিনের মধ্যে জিএসটি রিফান্ড পাওয়া যাবে।

গাড়ি-বাড়ির ঋণে সুদে কমাবে ব্যাঙ্কগুলি।

কোম্পানি আইনে হওয়া ১৪,০০০ অভিযোগ তুলে নেওয়া হচ্ছে। মামলার পরিবর্তে জরিমানের দিকে ঝুঁকবে সরকার।

আরও পড়ুন-এক মাসে দু’বার, ফের ফিক্সড ডিপোজিটে সুদ কমালো SBI

আয়কর আধিকারিকরা তাঁর আঞ্চলিক দফতর থেকে কোনও আয়করদাতাকে কোনও চিঠি পাঠাতে পারবেন না। পরিবর্তে চিঠি পাঠানো হবে বিভাগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে। প্রতিটি চিঠির পৃথক ডকেট নম্বর(ডিন) দেওয়া হবে। ডিন নেই এমন কোনও চিঠি এলে তা প্রাপক অগ্রাহ্য করতে পারেন। বিজয়া দশমীর দিন থেকে চালু হবে এই পদ্ধতি। সীতারমন জানিযেছেন, এর আগে পর্যন্ত যে চিঠিই পৌঁছে থাকুকনা না কেন তা আর বিজয়া দশমীর পর থেকে গ্রাহ্য হবে না। শুধুমাত্র যে নথিগুলি আয়কর দফতরের ওয়েবসাইটে আপলোড করা হবে তা গ্রাহ্য হবে।

সংবাদিক সম্মলনে সীতারমন এদিন বলেন, বিশ্বের বাজারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-চিন শুল্ক যুদ্ধ, ডলারের তুলনায় টাকার পতনে বাজারে মন্দা রয়েছে। কিন্তু ভারতের অর্থনীতি এখনও ভালো জায়গাতেই রয়েছে। সীতারমন বলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের থেকেও ভারতের অর্থনীতির হাল অনেকটাই স্থিতশীল।