close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

সিবিআইয়ের অন্তর্বর্তিকালীন ডিরেক্টরের পদে নাগেশ্বর রাও, দমকলের দায়িত্ব নিতে নারাজ ভার্মা

বৃহস্পতিবার তাঁর অপসারণ নিয়ে একপ্রকার কেন্দ্রকে নিশানা করেছেন অলোক ভার্মা। সংবাদ মাধ্যমে তিনি জানান, গতকাল নেওয়া সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র আমার কার্যপদ্ধতি নিয়েই প্রশ্ন তুলে দেয়নি বরং প্রশ্ন উঠেছে সিবিআইয়ের কার্যপদ্ধতি নিয়েও। 

Updated: Jan 11, 2019, 03:44 PM IST
সিবিআইয়ের অন্তর্বর্তিকালীন ডিরেক্টরের পদে নাগেশ্বর রাও, দমকলের দায়িত্ব নিতে নারাজ ভার্মা

নিজস্ব প্রতিবেদন: সিবিআই নিয়ে জলঘোলা অব্যহত। বৃহস্পতিবার সিবিআই প্রধানের পদ থেকে অলোক ভার্মাকে সরানোর পর অন্তর্বর্তিকালীন ডিরেক্টর পদে ফের আনা হল এম নাগেশ্বর রাওকে।

আরও পড়ুন-

এদিকে, শুক্রবার আরও একটি ঘটনা ঘটল। প্রাক্তন সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মাকে পাঠানো হয়েছিল দমকল ও সিভিল ডিফেন্সের ডিজি করে। সেই পদে যোগ দিতে অস্বীকার করলেন অলোক ভার্মা। সংশ্লিষ্ট দফতরের সচিবকে এক চিঠিতে ভার্মা লিখেছেন, আমাকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সিলেকশন কমিটি আমাকে আত্মপক্ষ সমর্থন করার সুযোগ দেয়নি।

আরও পড়ুন-জয়নগর শুটআউট: দিল্লিতে গ্রেফতার তৃণমূল নেতা খুনে মূল অভিযুক্ত বাবুয়া

ওড়িশা ব্যাচের আইপিএস অফিসার নাগেশ্বর রাও আপাতত সিবিআই প্রধানের দায়িত্বে কাজ করবেন। স্পেশাল সিবিআই ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে ওঠা ঘুষের অভিযোগেরও তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছেন নাগেশ্বর রাও। আর পদ আসতেই অলোক ভার্মা যেসব আধিকারিকের বদলির নির্দেশ দিয়েছিলেন তা বাতিল করে দেন।

উল্লেখ্য, সিবিআইয়ের ডিরেক্টরদের মধ্যে গন্ডগোলের মাঝে ২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর সিবিআইয়ের ডিরেক্টের দায়িত্ব সামাল দেওয়ার জন্য আনা হয় নাগেশ্বর রাওকে। কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা ও ডিরেক্টরের মধ্যে গোলমালের কারণেই আনা হয় রাওকে। ওই পদে আসার পর দিনই সংস্থার একঝাঁক অফিসারকে বদলি করে দেন রাও।

আরও পড়ুন-বিক্ষোভের জেরে কলকাতায় বন্ধ হল 'দ্যা অ্যাকসিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার'-এর শো

অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার তাঁর অপসারণ নিয়ে একপ্রকার কেন্দ্রকে নিশানা করেছেন অলোক ভার্মা। সংবাদ মাধ্যমে তিনি জানান, গতকাল নেওয়া সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র আমার কার্যপদ্ধতি নিয়েই প্রশ্ন তুলে দেয়নি বরং প্রশ্ন তুলেছেন সিবিআইয়ের কার্যপদ্ধতি নিয়েও। সিবিআই সিভিসি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হবে কিনা তা কেন্দ্রকে ভাবতে হবে।