'মাওবাদী কাকু আমার বাবাকে ফিরিয়ে দাও', কান্নাভরা মুখে নিখোঁজ জওয়ানের মেয়ে

‘‘পাপার পরী পাপাকে খুব মিস্ করছে। আমি পাপাকে খুব ভালবাসি। প্লিজ নকশাল আঙ্কল, আমার পাপাকে ঘরে পাঠিয়ে দাও।’’

Updated By: Apr 7, 2021, 11:43 AM IST
'মাওবাদী কাকু আমার বাবাকে ফিরিয়ে দাও', কান্নাভরা মুখে নিখোঁজ জওয়ানের মেয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাবাকে ফিরে পেতে কান্নাকাটি করছে মেয়ে সিআরপিএফ জওয়ানের মেয়ে শ্রাঘবী। সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার সামনে কান্নাভরা মুখে সে বলে 'মাওবাদী কাকু দয়া করে আমার বাবাকে ফিরিয়ে দিন'। ভয়ে শঙ্কিত পরিবার পরিজন। কোথায় তাঁদের ঘরের ছেলে?  কী অবস্থায় রয়েছে সে? জানতে চায় পরিবার। 

শনিবার ছত্তীসগঢ়ের সুকমা-বিজাপুর সীমানার জাগারগুন্ডা-জোঙ্গাগুড়া-তারেম জঙ্গলে মাওবাদীদের সঙ্গে সিআরপিএফ জওয়ানদের গুলির লড়াইয়ে শহিদ ২২। ৩২ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। কমান্ডো রাকেশ্বর সিংহ মনহাসকে বন্দি করেছে মাওবাদীরা। প্রসঙ্গত, দুজন স্থানীয় সাংবাদিকের কাছে সোমবার আসে রহস্যজনক ফোন। ফোনের ওপার থেকে বলা হয়, সিআরপিএফ-এর কমান্ডোকে বন্দি করে রাখা হয়েছে। গুলির লড়াইয়ের পর সেই কমান্ডোকে নিয়ে গিয়েছে তাঁরা। এই খবর স্ত্রীয়ের কাছে পৌঁছাতেই, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদী ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের কাছে চিঠি দিয়ে স্বামীকে ফিরিয়ে দেওয়ার আর্জি করেন। 

রাকেশ্বরের স্ত্রী মিনু মনহাসের কথায় সংবাদ মাধ্যমের ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে শ্রাঘবী বলেন, ‘‘পাপার পরী পাপাকে খুব মিস্ করছে। আমি পাপাকে খুব ভালবাসি। প্লিজ নকশাল আঙ্কল, আমার পাপাকে ঘরে পাঠিয়ে দাও।’’

 

উল্লেখ্য, বিজাপুর প্রেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট গণেশ মিশ্র জানিয়েছেন, মাওবাদীরা নিজেদের সেভাবে কোনও পরিচয় দেয়নি। তাঁরা জানিয়েছে ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে তাঁকে ফিরিয়ে দেওয়া হবে। 

আরেক সাংবাদিক রাজা সিং রাঠোরের কাছে যে ফোনটি আসে, সেখানে ফোনের ওপার থেকে নিজের পরিচয় দেন ব্যক্তি, তিনি মাওনেতা হিদমা। সাংবাদিকের কথায়, হিদমা জানিয়েছে,  'নিখোঁজ জওয়ান তার হেফাজতে রয়েছে। আমি জওয়ানের ক্ষতি করব না এবং তিনি নিরাপদে আছেন। শীঘ্রই তাঁর ছবি পাঠানো হবে। "