''সংবিধানে love-Jihad নিয়ে কোনও সংজ্ঞাই নেই, তা হলে আইন কীসের?'' সওয়াল Owaisi-র

লভ জিহাদ রুখতে আইন প্রণয়নের তীব্র বিরোধিতা করেছেন AIMIM প্রধান আসদুদ্দিন ওয়েইসি।

Edited By: সুমন মজুমদার | Updated By: Dec 29, 2020, 05:37 PM IST
''সংবিধানে love-Jihad নিয়ে কোনও সংজ্ঞাই নেই, তা হলে আইন কীসের?'' সওয়াল Owaisi-র

নিজস্ব প্রতিবেদন- লভ জিহাদ। দুটি শব্দে এখনন তোলপাড় গোটা দেশ। মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যগুলিতে প্রশাসন লভ জিহাদ রুখতে তত্পর। ধর্ম লুকিয়ে হিন্দু মেয়েদের প্রেমের জালে ফাঁসাচ্ছে মুসলিম যুবকরা। বিয়ের পর হিন্দু মেয়েদের ধর্ম পরিবর্তনে বাধ্য করা হচ্ছে। অভিযোগ এমনই। গত কয়েক বছরে এমন একের পর এক ঘটনা সামনে এসেছে। তাই মধ্যপ্রদেশের ক্যাবিনেটে এবার ধর্ম স্বতন্ত্রতা অর্ডিন্যান্স পাস হয়েছে। রাজ্যে লভ জিহাদের বাড়বাড়ন্ত রুখতেই এমন আইন আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছে শিবরাজ সিং চৌহানের সরকার। তবে দেশের যে কোনও রাজ্য লভ জিহাদ রুখতে আইন প্রণয়নের তীব্র বিরোধিতা করেছেন AIMIM প্রধান আসদুদ্দিন ওয়েইসি।

এদিন ওয়েইসি বলেছেন, ''দেশের সংবিধানের কোথাও লভ জিহাদ নিয়ে কোনও সংজ্ঞা লেখা নেই। তা হলে আইনের কথা আসছে কোথা থেকে! বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি ক্রমাগত সংবিধানের অবমাননা করছে। সংবিধান বলে কিছু যে আছে, সেটা মানতেই চাইছে না বিজেপি। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে প্রশাসনের এতই যখন আইন প্রণয়নের ইচ্ছে, তখন MSP লাগু করুক। সংবিধানের Article 21, 14 ও 25-এ পরিষ্কার লেখা রয়েছে, দেশের কোনও নাগরিকের ব্যক্তিগত জীবনে সরকার নাক গলাতে পারবে না। আদালতও একই কথা বলেছে। তাও বারবার বিজেপি মানুষের মৌলিক অধিকার খর্ব করছে।''

আরও পড়ুন-  পণ্য পরিবহনে আসবে নতুন গতি; Bhaupur-New Khurja, EDFC-র সূচনা মোদীর, একসময়ে জুড়বে বাংলাও

মধ্যপ্রদেশে লভ জিহাদের অভিযোগ সত্যি বলে প্রমাণিত হলে পাঁচ থেকে দশ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। এমনকী এক লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানাও হতে পারে। এমনকী অভিযুক্ত ব্যক্তির লোকজন জড়িত থাকলে তাঁদেরও শাস্তি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এর আগে উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথের সরকারও লভ জিহাদ রুখতে প্রায় একইরকম আইন পাস করিয়েছে। ওয়েইসির সুরে সুর মিলিয়েছেন জনতা দল ইউনাইটেডের নেতা কেসি ত্যাগী। তিনিও দাবি করেছে, এই ধরণের আইন প্রণয়ন করে বিজেপি শাসিত রাজ্য সরকারগুলি দেশে ঘৃণার বাতাবরণ সৃষ্টি করতে চাইছে।