"আমাদের কাজ বাকিদের থেকে আলাদা", হিমাচল থেকে 'উন্নতির বার্তা' মোদীর

 প্রধানমন্ত্রী মোদী ভারতীয় জনতা পার্টির ডবল ইঞ্জিনের সরকারকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, তাদের কাজের ধরণ বাকিদের থেকে আলাদা। বিজেপির ডবল ইঞ্জিনের সরকার সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও বিশ্বাসের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। 

Updated By: Oct 13, 2022, 06:20 PM IST
"আমাদের কাজ বাকিদের থেকে আলাদা", হিমাচল থেকে 'উন্নতির বার্তা' মোদীর
ফাইল ছবি

জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটাল ব্যুরো: হিমাচলপ্রদেশে বন্দে ভারত সিরিজের চতুর্থ ট্রেনটির উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী মোদী ভারতীয় জনতা পার্টির ডবল ইঞ্জিনের সরকারকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, তাদের কাজের ধরণ বাকিদের থেকে আলাদা। বিজেপির ডবল ইঞ্জিনের সরকার সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও বিশ্বাসের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এদিন তিনি আরও বলেন, চাম্বা-সহ সমগ্র হিমাচল প্রদেশ বিশ্বাস ও ঐতিহ্যের এক দেশ। মানুষের জীবন সহজ করে দেওয়া আমাদের অগ্রাধিকার। এই কারণেই আমরা আদিবাসী এলাকা এবং পার্বত্য এলাকায় সবথেকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি।

আরও পড়ুন, Category-II Cyclone: আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের দিক থেকে ধেয়ে আসছে ভয়ানক এক ঘূর্ণিঝড়?

তিনি বলেন, গ্যাস সংযোগ, পাইপের মাধ্যমে জল সরবরাহ, স্বাস্থ্য পরিষেবা, আয়ুষ্মান ভারত এবং প্রত্যন্ত ও পার্বত্য এলাকায় সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলার মতো বিষয়গুলিকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। মোদী এদিন আরও বলেন, ‘আমরা যদি গ্রামে ওয়েলনেস সেন্টার তৈরি করি, একই সঙ্গে আমরা জেলায় মেডিকেল কলেজও খুলছি। হিমাচল প্রদেশের ঐতিহ্য ও পর্যটনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী মোদী কুলুর দশেরা উৎসবের কথা স্মরণ করে বলেন, আমাদের একদিকে ঐতিহ্য রয়েছে, অন্যদিকে পর্যটন রয়েছে। 

হিমাচল প্রদেশের উনা রেলস্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করল দেশের চতুর্থ বন্দে ভারত এক্সপ্রেস। ট্রেনটি হিমাচলের অম্বা অন্দৌরা স্টেশন থেকে নয়াদিল্লি পর্যন্ত যাতায়াত করবে। বন্দে ভারত এক্সপ্রেস উদ্বোধনের পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির চেষ্টাতেই রেল সম্প্রসারণ ঘটেছে হিমাচল প্রদেশে। পাশাপাশি বন্দে ভারত ট্রেনের সূচনা হিমাচলপ্রদেশবাসীর জন্য যে অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা গ্রহণ করবে, সে কথাও জানান তিনি। পাশাপাশি জানা যাচ্ছে, বন্দে ভারত এক্সপ্রেস প্রতি একশ কিলোমিটার পেরোবে মাত্র ৫২ সেকেন্ডে। কার্যত বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের কারণে হিমাচল প্রদেশের পর্যটন ব্যবসার গতি বৃদ্ধি হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সরকারি সূত্রে খবর, এই দুটি প্রকল্প বছরে ২৭০ মিলিয়ন ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে এবং হিমাচল প্রদেশ এই প্রকল্পগুলি থেকে বছরে ১১০ কোটি টাকা রাজস্ব পাবে।

আরও পড়ুন, Agartala-Kolkata Express: ত্রিপুরা যাওয়া এখন আরও সহজ, আগরতলা-কলকাতা এক্সপ্রেসের যাত্রার সূচনা রাষ্ট্রপতির

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)