ভারত-চিন উত্তেজনার মাঝে আচমকা লেহ-তে হাজির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

বৃহস্পতিবার লাদাখ পৌঁছনোর কথা ছিল রাজনাথ সিংয়ের। কিন্তু শেষমেশ তাঁর সফর বাতিল হয়। 

Edited By: সুমন মজুমদার | Updated By: Jul 3, 2020, 11:19 AM IST
ভারত-চিন উত্তেজনার মাঝে আচমকা লেহ-তে হাজির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

নিজস্ব প্রতিবেদন- ভারত-চিন উত্তেজনার মাঝেই আচমকা লেহ-তে হাজির হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সিডিএস বিপিন রাওয়াত ও আধিকারিকদের নিয়ে শুক্রবার ভোরে লেহ-তে পৌঁছলেন নরেন্দ্র মোদী। ১১ হাজার ফিট উঁচুতে অবস্থিত নিমু চেকপোস্টে হাজির হন প্রধানমন্ত্রী। জানা গিয়েছে, দুই দেশের সীমান্ত উত্তেজনার মাঝে সেনা জওয়ানদের মনোবল বাড়াতেই প্রধানমন্ত্রী আচমকা লেহ-তে হাজির হয়েছেন। এদিন ভোরে লেহ-তে পৌঁছেই তিনি স্থল, জল ও বায়ুসেনার জওয়ানদের সঙ্গে আলোচনা করেন। পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন নিমুতে কর্তব্যরত সেনা আধিকারিকদের সঙ্গে। সেনা ছাউনিতে বসে জওয়ানদের সঙ্গেও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। আইটিবিপি-র আধিকারিকদের সঙ্গেও আলোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার লাদাখ পৌঁছনোর কথা ছিল রাজনাথ সিংয়ের। কিন্তু শেষমেশ তাঁর সফর বাতিল হয়। আর্মি জেনারেল এমএম নারাভানের সঙ্গে তাঁর লাদাখ সফরের কথা ছিল। নারাভানে অবশ্য দিনকয়েক আগেই লাদাখে ভারতীয় সেনার অবস্থান ও পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে এসেছেন। জানা গিয়েছে, রাজনাথ সিংও সেনার মনোবল বাড়ানোর উদ্দেশেই লাদাখ সফরে যেতেন। কিন্তু তাঁর বদলে খোদ প্রধানমন্ত্রী হাজির হলেন লাদাখের পরিস্থিতিত সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এদিন নারাভানে ছিলেন।

আরও পড়ুন-  যোগীর রাজ্যে লঙ্কাকাণ্ড! অপরাধী ধরতে গিয়ে একসঙ্গে শহিদ আটজন পুলিসকর্মী

১১ হাজার ফিট উচ্চতায় অবস্থিত নিমুকে বিশ্বের সব থেকে কঠিন যুদ্ধক্ষেত্র বলে মনে করা হয়। এদিন সেখানে সেনা ছাউনিতে বসে আলোচনা সারেন প্রধানমন্ত্রী। আজই তাঁর ফিরে আসার কথা। এর আগে মন কি বাত-এ প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ভারত সব সময় বন্ধুত্বের জন্য হাত বাড়িয়ে রয়েছে। কিন্তু কেউ বেআইনিভাবে ভারতের ভূখণ্ড দখল করতে চাইলে যোগ্য জবাব দিতেও ভারত পিছপা হবে না। তার পর দুই দেশের সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমিত হয়নি। আর তাই এবার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আচমকাই লেহ-তে হাজির প্রধানমন্ত্রী।